‘তুরস্ক যা চেয়েছে তা পেয়েছে’

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: রাশিয়া ইউক্রেনে হামলা করার পর ফিনল্যান্ড ও সুইডেন ন্যাটোতে যোগ দেওয়ার আবেদন করে।

ন্যাটোভুক্ত ৩০টি দেশের সবাই এ দুটি দেশকে সমর্থন জানালেও তুরস্ক জানিয়েছিল, তারা সায় দেবে না।

তুরস্কের দাবি ছিল ফিনল্যান্ড-সুইডেন পিকেকে এবং ওয়াইপিজে জঙ্গিদের মদদ দেয়, যারা তুরস্কের বিরুদ্ধে কাজ করে।

মঙ্গলবার স্পেনের মাদ্রিদে ফিনল্যান্ডের প্রেসিডেন্ট, সুইডেনের প্রধানমন্ত্রী এবং ন্যাটোর সেক্রেটারি জেনারেল তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিস্যেপ তাইয়্যেপ এরদোগানের সঙ্গে বৈঠক করেন।

এ বৈঠকের পর তুরস্ক জানায় তারা ফিনল্যান্ড-সুইডেনের সদস্যপদ পাওয়ার ক্ষেত্রে বাধা দেবে না।

তুরস্ক বিষয়টি নিয়ে বেশ কঠোর অবস্থানে ছিল। কিন্তু মঙ্গলবার সকলকে অবাক করে দিয়ে নরম হয়ে যায় তারা।

হঠাৎ করে কেন তুরস্ক ফিনল্যান্ড-সুইডেনকে ন্যাটোর সদস্যপদ দিতে রাজি হয়ে গেল?

তুরস্কের গণমাধ্যম ডেইলি সাবাহ প্রেসিডেন্সিয়াল অফিসের বরাত দিয়ে জানিয়েছে, ‘তুরস্ক যা চেয়েছিল তা  পেয়েছে।’ ফলে তারা রাজি হয়েছে।

তুরস্ক চেয়েছিল ফিনল্যান্ড-সুইডেন পিকেকে জঙ্গিদের যেন মদদ দেওয়া বন্ধ করে দেয়।

তুরস্ক চেয়েছিল তাদের ওপর সুইডেন-ফিনল্যান্ড যে অস্ত্র নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে সেটি যেন তুলে নেওয়া হয়।

তুরস্কের প্রেসিডেন্সিয়াল দপ্তরের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, ফিনল্যান্ড-সুইডেন রাজি হয়েছে তারা ‘পিকেকে জঙ্গিদের বিরুদ্ধে তুরস্কের সঙ্গে কাজ করবে।’

২০১৯ সালে সিরিয়ায় অভিযান চালানোর জন্য তুরস্কের ওপর যে অস্ত্র নিষেধাজ্ঞা দিয়েছিল ফিনল্যান্ড-সুইডেন সেটি তুলে নিতে চুক্তি করেছে।

প্রেসিডেন্সিয়াল অফিসের পক্ষ থেকে আরও বলা হয়েছে, এ দুটি দেশ তাদের দেশে ‘পিকেকে সংশ্লিষ্ট সকল ধরনের অর্থ সংগ্রহ এবং মিলিশিয়া নিয়োগের বিরুদ্ধে কাজ করবে  এবং তুরস্কের বিরুদ্ধে জঙ্গিবাদমূলক কর্মকান্ড আটকাবে।’

তাছাড়া ফিনল্যান্ড-সুইডেনে বসবাস করা তুরস্কের ওয়ান্টেড জঙ্গিদের ফেরত দেবে তারা।

সূত্র: ডেইলি সাবাহ

কমেন্ট

Leave a Reply

Your email address will not be published.