আবদুল আজিজের লোভ বেড়ে গেছে: অশোক ধানুকা

249 total views, 1 views today

বিনোদন ডেস্ক:: বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান জাজ মাল্টিমিডিয়া। দেশীয় ছবি প্রযোজনার পাশাপাশি ভারতের সঙ্গে যৌথভাবে ছবি প্রযোজনা করে থাকে প্রতিষ্ঠানটি। গত কয়েক বছরে বাংলা চলচ্চিত্রে বেশ কয়েকজন প্রতিভাবান নায়ক-নায়িকা তৈরি করেছে তারা। এই প্রতিষ্ঠানটির কর্ণধার আবদুল আজিজ। সম্প্রতি তাকে লোভী বলে আখ্যায়িত করেছেন ভারতের প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান এসকে মুভিজের মালিক অশোক ধানুকা।

ওপার বাংলার এ প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানটি ১৯৯৭ সাল থেকে বাংলাদেশের সঙ্গে ছবি প্রযোজনা করে। ১৯৯৮ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশের সঙ্গে যৌথ প্রযোজনায় চারটি ছবি নির্মাণ করে তারা। পরে দীর্ঘ ১৬ বছর বাংলাদেশের সঙ্গে আর কোনো ছবি নির্মাণ করেননি। ২০১৪ সালে জাজ মাল্টিমিডিয়ার সঙ্গে যুক্ত হয়ে আবারও যৌথ প্রযোজনায় ছবি নির্মাণ শুরু করে অশোক ধানুকার এসকে মুভিজ।

কিন্তু বর্তমানে জাজ মাল্টিমিডিয়ার সঙ্গে ওপার বাংলার এ প্রতিষ্ঠানটির সম্পর্ক একেবারেই ভালো নয়। সম্পর্কের এতটাই অবনতি হয়েছে যে, বাংলাদেশের সঙ্গে যুক্ত হয়ে তারা আর কোনো ছবি বানাবেন না বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছে।

সম্প্রতি দেশের প্রথমসারির একটি দৈনিক পত্রিকাকে দেয়া সাক্ষাতকারে এর কারণ জানতে চাইলে অশোক ধানুকা বলেন, ‘জাজ মাল্টিমিডিয়ার আবদুল আজিজ সাহেবের লোভ বেড়ে গেছে। তার ইচ্ছা, কলকাতার যত প্রযোজক আছেন, তাদের সবার সঙ্গে তিনি একাই কাজ করবেন। অন্য কেউ কাজ করতে পারবেন না। এই লোভের কারণেই আমাদের সম্পর্ক নষ্ট হয়েছে।’

কলকাতার নামি এ প্রযোজক অভিযোগ করেছেন বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সুপারস্টার শাকিব খানের বিরুদ্ধেও। শাকিবের পারিশ্রমিক সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশে শাকিব খান যখন ছবিপ্রতি ১৫ লাখ টাকা সম্মানী পেয়েছে, তখন ওকে দিয়ে ভালো ভালো ছবি বানিয়েছি। এখন সে বলে, ছবিপ্রতি ৬০ লাখ না দিলে সিনেমা করবে না! আমার তো শুধু বাংলাদেশ দিয়ে চলে না। টাকাটা তো তুলে আনতে হবে।’

এছাড়া বাংলাদেশের হল মালিকদের দিকেও আঙুল তুলেছেন অশোক ধানুকা। বলেছেন, ‘এখানে সিনেমা হল মালিকরা ১৮০ টাকায় টিকিট বিক্রি করে আমাকে দেয় মাত্র ৩৫ টাকা! বাকি টাকা হল মালিকরা নেয়। অথচ, কলকাতায় মোট টিকিট বিক্রির শতকরা ৭০ ভাগ পায় প্রযোজকরা। তাহলে বাংলাদেশে ছবি নির্মাণ করে লাভ কী?’

প্রসঙ্গত, বাংলাদেশের সঙ্গে এসকে মুভিজের নির্মিত প্রথম ছবি ছিল জসিম ও শাবানা অভিনীত ‘স্বামী কেন আসামি’। ১৯৯৭ সালে মুক্তি পাওয়া সে ছবিতে ভারত থেকে ছিলেন ঋতুপর্ণা ও চাংকি পাণ্ডে। বাংলাদেশের সঙ্গে যৌথভাবে এ পর্যন্ত তারা ১৩টি ছবি প্রযোজনা করেছে। সেগুলোর মধ্যে ‘আশিকী’, ‘রোমিও বনাম জুলিয়েট’, ‘আমি শুধু চেয়েছি তোমায়’, ‘অগ্নি’, ‘শিকারি’, ‘নবাব’, ‘রক্ত’, ‘চালবাজ’ ও ‘ভাইজান এলো রে’ অন্যতম।

কমেন্ট
শেয়ার করুন
  • 14
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    14
    Shares