নিখোঁজের চার দিন পরে ফেসবুক লাইভে তারেক

60 total views, 4 views today

নিউজ ডেস্ক:: নিখোঁজের চার দিন পর ফেসবুক লাইভে এসে নিখোঁজ হননি বলে জানালেন কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলনরত সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক মো. তারেক রহমান।

এর আগে গত ১৪ জুলাই, শনিবার থেকে নিখোঁজ ছিলেন তারেক।

চার দিন থেকে তার কোনো সন্ধান মিলছিল না বলে দাবি করেছিল তারেকের পরিবার। তবে ১৮ জুলাই, তার সন্ধান মিলেছে। এদিন সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে তিনি ফেসবুক লাইভে এসেছিলেন। লাইভে তাকে বিচলিত ও আতঙ্কিত দেখাচ্ছিল।

ফেসবুক লাইভে এসে তারেক বলেন, ‘আমি গ্রেফতার হয়নি, আবার সে রকম কিছু হয়নি। আমি এখন আমার বাবার সাথে আছি। আপনারা ভুল খবর প্রচার করে মানুষকে বিভ্রান্ত করবেন না। লিফলেট বা ব্যানার বানানোর কারণে রিমান্ড দেওয়া হবে বা মানুষকে গ্রেফতার করা হবে—এই রকম ঘটনা আসলে ঘটেনি।’

নিখোঁজ হননি দাবি করে সেদিনের বিষয়ে বর্ণনা দিয়ে তারেক বলেন, ‘সেদিন আমি ব্যানার বানাতে ফকিরাপুলে গিয়েছিলাম। সেখানকার মালেক ম্যানশনের একটি দোকানে লিফলেটের জন্য কাগজগুলো জমা দিই। এ সময় দেখি আমাকে অনেকে অনুসরণ করছে। ওই সময় আমি আমার মোবাইল ফেলে রেখে দৌড়ে পালিয়ে যাই। সে সময় আমার কাছে মোবাইল ছিল না। অন্যজনের কাছে রেখে চলে যাই। আমি কোনোভাবে একটি মোবাইল জোগাড় করে ফেসবুক লাইভে আসলাম। এখনো আমার সিমগুলো তাদের কাছে আছে।’

তারেক বলেন, ‘আমি খুব অসুস্থ। আমার জন্য সবাই দোয়া করবেন। অনেক জ্বর গায়ে। আমি ডাক্তারের কাছে গিয়েছিলাম। আবার ডাক্তারের কাছে যাব। মানসিকভাবে অনেকটা হ-য-ব-র-ল অবস্থায় আছি। কারণ আমি আছি ভয়ে ভয়ে; আর এদিকে প্রচার করা হচ্ছে আমাকে রিমান্ডে নেওয়া হচ্ছে, গ্রেফতার করা হচ্ছে। অতি-উৎসাহে কোটা আন্দোলনের বেশি বাড়াবাড়ি করা ঠিক না।’

কোটা বিষয়ে তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী যেখানে আশ্বস্ত করেছেন যে কোটা নিয়ে কমিটি হয়েছে এবং প্রজ্ঞাপন দেওয়া হবে। আপনারা বিশ্বাস রাখতে পারেন এবং সেই বিশ্বাস রেখে সেই অনুযায়ী কাজ করতে পারেন। বিভিন্ন মহল নানা রকম অপপ্রচার চালাচ্ছে এই আন্দোলনে অনুপ্রবেশের জন্য। সেই বিষয়ে আপনারা নজর রাখবেন।’

গত সোমবার দুপুরে তারেককে ফিরিয়ে দিতে বাংলাদেশ ক্রাইম রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনে (ক্র্যাব) এক সংবাদ সম্মেলন করে বাবা মো. আব্দুল লতিফ এবং মা শাহানা বেগম তার নিখোঁজের বিষয়টি জানিয়েছিলেন।

১৫ জুলাই, রবিবার দিবাগত মধ্যরাতে শাহবাগ থানায় তারেকের মা জিডি করতে গেলে ডিউটি অফিসার জানান, তারা তদন্ত করে জিডি নেবেন বলে সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়েছিল।

নিচে তারেকের ভিডিও লিংকটি দেওয়া হলো।

কমেন্ট
শেয়ার করুন
  • 4
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    4
    Shares