গণপরিবহণে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়

নিউজ ডেস্ক:: সরকার ভাড়া বাড়ানোর ঘোষণা দিলেও এখন পর্যন্ত বর্ধিত ভাড়ার তালিকা দেয়া হয়নি। এই সুযোগে রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে গণপরিবহণে ইচ্ছেমতো বাড়তি ভাড়া আদায় করা হচ্ছে।

এখন পর্যন্ত যেহেতু প্রজ্ঞাপন জারি হয়নি, তাই বিআরটিএ এবং মালিক সমিতির পক্ষ থেকে চার্ট তৈরি হয়নি। এই সুযোগে গড়পড়তায় হিসাব করে বাসে কন্ডাক্টররা বাড়তি ভাড়া নিচ্ছেন। রাজধানীর বিভিন্ন রুটে সর্বনিম্ন ভাড়া ১০ টাকা হলেও তা বাড়িয়ে ১৫ থেকে ২০ টাকা নেওয়া হচ্ছে। এতে কোথাও কোথাও যাত্রী-শ্রমিকদের মাঝে চলছে বাহাস।

রোববার (৭ আগস্ট) রাজধানীর মালিবাগ, রামপুরা, কুড়িল, যাত্রাবাড়ী, সায়েদাবাদ, গুলিস্তান, পল্টন, শনির আখড়া ও ধোলাইপাড় এলাকা ঘুরে এমন চিত্র দেখা যায়।

তালিকা হওয়ার আগেই ইচ্ছে মতো ভাড়া বৃদ্ধির ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন সাধারণ যাত্রীরা।

উল্লেখ্য, শনিবার বিআরটিএ কর্তৃপক্ষ ও পরিবহন মালিকের বৈঠকে ভাড়া বাড়ানোর সিদ্ধান্ত হয়। এতে দূরপাল্লায় বাস ভাড়া প্রতি কিলোমিটারে ৪০ পয়সা বা ২২ শতাংশ বেড়ে হয়েছে ২ টাকা ২০ পয়সা। ঢাকা ও চট্টগ্রাম মহানগরে ৩৫ পয়সা বা প্রায় ১৬ শতাংশ বেড়ে নতুন ভাড়া ২ টাকা ৫০ পয়সা।

তবে বাড়ানো হয়নি ঢাকার আশেপাশের জেলায় বাসের ভাড়া। তা প্রতি কিলোমিটারে আগের ২ টাকা ৪০ পয়সাই থাকছে। বাসে সর্বনিম্ন ভাড়া ১০ টাকা ও মিনিবাসে ৮ টাকা।

এর আগে শুক্রবার (৫ আগস্ট) রাতে ডিজেল, পেট্রল, কেরোসিন, ও অকটেনের দাম বাড়ায় সরকার। এতে করে প্রতি লিটার ডিজেলে ৩৪, কেরোসিনে ৩৪, অকটেনে ৪৬ ও পেট্রলে ৪৪ টাকা বেড়েছে। দাম বাড়ার পর প্রতি লিটার ডিজেল ১১৪ টাকা, কেরোসিন ১১৪ টাকা, অকটেন ১৩৫ টাকা ও প্রতি লিটার পেট্রল ১৩০ টাকায় কিনতে হবে।

কমেন্ট

Leave a Reply

Your email address will not be published.