সেই দ্বীপে মোতায়েন নেই ইউক্রেনীয় বাহিনীও

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: কৃষ্ণ সাগরে ইউক্রেনের উপকূলীয় স্নেক আইল্যান্ডের ফাঁড়িতে এখনও পর্যন্ত কোনো ইউক্রেনীয় বাহিনী মোতায়েন নেই বলে জানিয়েছেন ইউক্রেনের সশস্ত্র বাহিনীর  ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ওলেক্সি হরমোভ। কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা বৃহস্পতিবার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

হরমোভ এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ওই দ্বীপে অস্ত্রসহ রুশ বাহিনীর সব রণসরঞ্জাম ধ্বংস করা হয়েছে বলে। শীগগিরই ওই দ্বীপে ইউক্রেনীয় বাহিনী মোতায়েন করা হবে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

তিনি আরও বলেন,  কৃষ সাগরের মধ্যদিয়ে শস্য বহনকারী জাহাজ চলাচল নির্বিঘ্ন করতে ইউক্রেনের সামরিক বাহিনী সম্ভাব্য সবকিছু করবে।

ইউক্রেনের বর্তমানে পূর্বাঞ্চলীয় শহর লিসিচানস্ক থেকে সেনা প্রত্যাহারের কোনো পরিকল্পনা নেই বলেও জানিয়েছেন তিনি।

এর আগে  কৃষ্ণ সাগরে ইউক্রেনের উপকূলীয় স্নেক আইল্যান্ড থেকে ‘শুভেচ্ছার স্বরূপ’ সব সেনা প্রত্যাহারে ঘোষণা দেয় রাশিয়া।

রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানায়, রাশিয়া যে ইউক্রেনের বাইরে কৃষি পণ্য রপ্তানি করার জন্য একটি মানবিক করিডোর তৈরিতে জাতিসংঘের প্রচেষ্টাকে বাধা দিচ্ছে না, এই পদক্ষেপ সেই বিষয়টিই তুলে ধরেছে।

ইউক্রেনে আক্রমণের প্রথম দিনেই রাশিয়া স্নেক আইল্যান্ড দখল করেছিল। ওই দ্বীপে অবস্থানরত ইউক্রেনীয় সীমান্তরক্ষীরা রাশিয়ার আত্মসমর্পণের দাবি প্রত্যাখ্যান করে বিশ্বজুড়ে ব্যাপক প্রশংসাও কুড়িয়েছিল।

তবে কিন্তু আগ্রাসনের প্রথম দিনে দ্বীপটি দখলে নিলেও এর ওপর রাশিয়া পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণ স্থাপন করতে পারেনি। সেখানে থাকা রুশ সেনাদের লক্ষ্য করে ড্রোন হামলা চালিয়ে আসছিল ইউক্রেনীয় বাহিনী।

কমেন্ট

Leave a Reply

Your email address will not be published.