ছেলের হাত ধরে ২৩ বছরের আক্ষেপ ঘুচল বাবার

স্পোর্টস ডেস্ক:: ভারতের ঘরোয়া ক্রিকেটের মর্যাদার লড়াই রঞ্জি ট্রফির ফাইনালে মুম্বাইকে হারিয়ে ইতিহাসে প্রথমবারের মতো শিরোপা ঘরে তুলেছে মধ্যপ্রদেশ।

ব্যাঙ্গালুরুতে রোববার ৪১ বারের চ্যাম্পিয়ন মুম্বাইকে ৪ উইকেটে হারিয়েছে আদিত্য শ্রিভাস্তাবের দল।

আর এরই সঙ্গে নিজের বাবার ২৩ বছরের আক্ষেপ ঘুচিয়েছেন মধ্যপ্রদেশের অধিনায়ক আদিত্য।

১৯৯৫ থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত মধ্যপ্রদেশের হয়ে খেলেছেন আদিত্যের বাবা চন্দ্রকান্ত পণ্ডিত।  দলটির নেতৃত্বও দিয়েছেন বেশ কয়েকটি মৌসুমে।

১৯৯৯ সালে মুম্বাইয়ের বিপক্ষে চন্দ্রকান্তের নেতৃত্বে ফাইনাল খেলে মধ্যপ্রদেশ। সেই ম্যাচ হেরে জয়ের স্বাদ নিতে পারেননি তিনি।

২৩ বছর পর ছেলের হাত ধরে সেই মুম্বাইকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে মধ্যপ্রদেশ।  শিরোপা জয়ের নেপথ্য নায়ক চন্দ্রকান্ত। কারণ দলটির বর্তমান কোচ তিনি।

২৩ বছরের আক্ষেপ ঘুচানোর খুশিতে চন্দ্রকান্ত পণ্ডিত বলেন, ‘এটি আমার জন্য আবেগঘন মুহূর্ত। এখন ২৩ বছর আগের কথা মনে পড়ছে। এই মাঠেই মধ্যপ্রদেশের অধিনায়ক হিসেবে ফাইনালে হারতে হয়েছিল। এবার এই মাঠেই রঞ্জিতে প্রথমবার চ্যাম্পিয়ন হলাম। অনেকে বলেন, বাবা যেটি করতে পারেননি, আজ ছেলে আদিত্য সেটি করে দেখাল।’

সেই আক্ষেপে যে নিয়মিতই পুড়তেন চন্দ্রকান্ত, তা ভালোই টের পাওয়া গেল তার কথায়— ‘আমি প্রায় ছয় বছর মধ্যপ্রদেশের হয়ে খেলেছি। গত মার্চে এই দলের কোচ হওয়ার প্রস্তাব দেওয়া হয়। আমি দ্বিতীয়বার ভাবিনি। অন্য কোনো প্রস্তাবে সাড়া দেওয়ার আগে আমি ভেবেছি মধ্যপ্রদেশেই ফিরে যাই, যেখানে আমার ২৩ বছর আগের কিছু বাকি রয়ে গেছে।’

তবে বাঁধভাঙা উচ্ছ্বাসে ছেলের প্রশংসা করতে কার্পণ্য করলেন না তিনি।

বললেন, ‘আমাকে বলতেই হবে— অধিনায়ক হিসেবে পরিকল্পনা ও কৌশলগত দিকে আদিত্য দুর্দান্ত। আমরা যা কিছু আলোচনা করতাম, সেগুলো মাঠে বাস্তবায়ন করতে কখনো সমস্যা হয়নি তার। আমার মতে, অধিনায়ক-ই যে কোনো দলের জয়ের সম্ভাবনা ৫০ শতাংশ বাড়িয়ে দেয়।’

কমেন্ট

Leave a Reply

Your email address will not be published.