পাঠক প্রিয়তায়”সূর্যালোকের মেয়ে”

প্রতিবেদক-শরীফ গাজী :: আলো যেমন জাগতিক নিয়মে অন্ধকার দূর করে সব কিছু মূর্ত করে,ঠিক তেমনি বই মানুষের মনের ভেতরে জ্ঞানের আলো এনে যাবতীয় অন্ধকারকে দূর করে চেতনার আলোকে সবকিছুকে উদ্ভাসিত করে দেখায়। আলো শুধু ভৌগোলিক ভাবে ছড়িয়ে যেতে পারে। আর বই অতীত থেকে ভবিষ্যৎ , নিকট থেকে দূরে , প্রান্ত থেকে অন্তে এমনকি যুগ থেকে যুগান্তরে জ্ঞানের আলোকে পৌঁছে দিতে পারে বই ।

ছোটবেলা বলতে বলা চলে হাইস্কুলে অষ্টম শ্রেণীতে পড়া কালিন সময় থেকেই কবিতা নাটকের পান্ড লিপি দিয়ে লেখা লেখি শুরু করি।

বিভিন্ন জাতীয় দিবসে নাঠক মঞ্চস্হ করে তখনকার সময়ে বিপুল সাড়া পাওয়া থেকেই উদ্দীপনা তৈরি হয়। কিন্তু বই আঁকারে প্রকাশনার চিন্তা কখনও আসেনি। রাগীব রাবেয়া ডিগ্রী কলেজের ভাইস প্রিন্সিপাল অর্ধেন্দু দাস,নাট্য ব্যক্তিত্ব রজৎ চৌধুরী,শিক্ষানুরাগী নবীন কলাম লেখক কবি হিমাংশু রায় হিমেল ও লেখক আশীষ দাসের উৎসাহ উদ্দীপনা কবিতা বই প্রকাশে অনুপ্রাণিত করে। বিশেষত কবিতা প্রেমি রজৎ চৌধুরী ও প্রিন্সিপাল অর্ধেন্দু দাস শত ব্যস্ততা রেখে দৌড় ঝাপের কারনে বুনন প্রকাশন থেকে ‘সূর্যালোকের মেয়ে কবিতা বইটি ২০২২ এ ২১ বই মেলার ‘বুনন ষ্টলে মহানন্দে উপস্হাপিত হয়। এর পূর্বে “প্রথম আলো বন্ধু সভার”আয়োজনে সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের বই মেলায় সর্বোচ্চ ষোলটি বই বিক্রির মধ্য দিয়ে জনপ্রিয়তার দিকে আগাতে থাকে।

ঢাকার বই মেলায় আরো সতেরোটি বই বিক্রি হয় বুনন ষ্টল থেকে। দেশে বিদেশে এই পর্যন্ত আর ষাটটি বই বিক্রি হয়েছে। ইতিমধ্যেই পাঠক প্রিয়তার একটা জায়গা তৈরি হয়েছে বলে অনেকে মনে করেন। সহসাই দ্বিতীয় সংস্করণ ছাপার প্রয়োজন হয়তো দেখা দিবে।

“সূর্যালোকের মেয়ে কবিতা বইটি বাজারে আসা মাত্র এত সাড়া পড়ায় আমি অবিভূত। পাঠক সুভানুধ্যায়ী সহ সকলের প্রতি কৃতজ্ঞ,ভালবাসার কাছে ঋণী। সকলের আগ্রহের কথা বিবেচনা করে,আগামীতে ‘উদলাগায়ে’ কবিতাবই’,ব্যাঙ্গালূরের পথে পথে’ গল্প।

দু’টি বই প্রকাশের অপেক্ষায়। আশা করি সবার ভাল লাগবে।

কমেন্ট

Leave a Reply

Your email address will not be published.