প্রেমিকা সুমির বিয়ের প্রস্তাবে কী বলেছিলেন সালমান?

বিনোদন ডেস্ক:: বলিউড প্লেবয় সালমান খানের প্রেমিকাদের সঠিক পরিসংখ্যান দেওয়া কঠিন কাজ। এতজনের সঙ্গে প্রেম করেও এখনও কাউকে জীবনসঙ্গী করতে পারেননি বলিউড ‘ভাইজান।’

এ জন্য সালমানের এলোমেলো জীবনকেই দায়ী করে থাকেন তার সমালোচকরা।  এসব সমালোচনা অবশ্য থোরাই কেয়ার করেন সালমান। কারণ বহু ষোড়শী এখনও সালমানের জন্য পাগল।

সুমি আলী, সংগীতা বিজলানি, ঐশ্বরিয়া রাই, ক্যাটরিনা কাইফের সঙ্গে সালমানের প্রেম ছিল ওপেন সিক্রেট। এদের ছাড়াও বহু তরুণীর তীরে নোঙর করেছেন সালমান।

বলিউড অভিনেত্রী সুমি আলীর সঙ্গে সালমানের প্রেম দীর্ঘদিন স্থায়ী ছিল।  তাদের বিয়ে করার কথাও ছিল। সুমি সালমানকে বিয়ের প্রস্তাব করেছিলেন।  এর জবাবে সালমান কী বলেছিলেন কয়েক যুগ পর সেটি স্মরণ করিয়ে দিয়েছেন এ নায়িকা।

বৃহস্পতিবার বলিউড লাইফের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে— সালমান-সুমির মধ্যে ১৯৯১ সালে প্রেমের সম্পর্কে জড়ান। তারা টানা ৮ বছর প্রেম করেন। সালমানের ‘মেইনে পিয়ার কিয়া’ চলচ্চিত্রটি দেখার পর তার প্রেমে পড়ে যান সুমি।  প্রেমের টানে পাকিস্তান থেকে ভারতে চলে আসেন সুমি। তখন বয়স ছিল মাত্র ১৬ বছর।
ফ্রি প্রেস জার্নালকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে সুমি আরও বলেন, আমি ছোট্ট একটা স্যুটকেস হাতে নিয়ে মাকে বললাম— আমি ভারত চলে যাচ্ছি সালমানকে বিয়ে করতে। এর পর মুম্বাই চলে আসি।

সালমানের সঙ্গে একটি ট্যুরে নেপাল যাওয়ার সময় দুজন পাশাপাশি সিটে বসা ছিলাম। একপর্যায়ে সালমানকে আমি বললাম— আমি দেশ ছেড়ে চলে এসেছি তোমায় বিয়ে করতে।  তার উত্তর শুনে আমার চোখ ছানাবড়া।
সালমান আমার প্রস্তাবের জবাবে বললেন, আমার মেয়েবন্ধু আছে। এর পরও আমি তার পিছু ছাড়িনি। আমার বয়স যখন ১৭, তখন সালমানের সঙ্গে আমার সম্পর্ক হয়। সালমান আমাকে বলেন, আমি তোমায় ভালোবাসি।

এর আগে এক সাক্ষাৎকারে সালমানের সঙ্গে তার বিচ্ছেদ নিয়ে মুখ খুলেন সুমি। তিনি জানান, সালমান তার সঙ্গে প্রতারণা করেছেন। অথচ সুমি সালমানের জন্য দেশ ছেড়ে ভারতে চলে আসেন। একপর্যায়ে বলিউডে ছবি করা শুরু করেন। যখন সুমির কাছে সালমানের প্রতারণা ধরা খায়, তখন তিনি ভারত ছেড়েই চলে যান। সালমনের সঙ্গে প্রেম সম্পর্ক ভাঙার পর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ফিরে যান সুমি। সেখানে নতুন করে উচ্চশিক্ষা শুরু করেন। এর পর লেখিকা, সমাজকর্মী হিসাবে নিজের পরিচয় করে তুলেছেন প্রাক্তন অভিনেত্রী।

কমেন্ট

Leave a Reply

Your email address will not be published.