এবার দূর হবে গণপরিবহন সঙ্কট, সিলেটে চালু হচ্ছে ‘নগর এক্সপ্রেস’

সিলেট নিউজ টাইমস্ ডেস্ক
সিলেটে ‘নগর এক্সপ্রেস’ নামে গণপরিবহন ব্যবস্থা চালু করছে সিলেট সিটি করপোরেশন (সিসিক)। প্রাথমিক অবস্থায় ২১ টি মিনিবাস নিয়ে চালু হচ্ছে এই সার্ভিস। এরমধ্যে নারীদের জন্য থাকছে আলাদা একটি বাস। যার চালক এবং সহযোগীও থাকবেন নারী।

চলতি মাসেই সিসিকের এই পরিবহন সেবা চালুর কথা রয়েছে। তবে সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, কোনো কারণে এই মাসে চালু করা সম্ভব না হলে আগামী মাসেই চালু হবে ‘নগর এক্সপ্রেস’ ও ‘স্কুল বাস সার্ভিস’। নগরী ছাড়াও নগরীর আশপাশের কয়েকটি এলাকায় চলবে এসব বাস। ফলে নগরীর পার্শ্ববর্তী এলাকার বাসিন্দারাও পাবেন এই পরিবহন সেবা। মঙ্গলবার ‘নগর এক্সপ্রেস’-এর চালকদের নিয়ে কর্মশালার আয়োজন করে সিটি করপোরেশন।

সিসিকের এমন উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন নাগরিকরা। তবে মাঝপথেই যাতে এমন সেবা বন্ধ না হয়ে পড়ে এ ব্যাপারে সচেষ্ট থাকার আহ্বান জানিয়েন তারা।

এরআগে ২০০৮ সালে নিটলস মটরসের ৩৫ টি মিনি বাস নিয়ে ‘টাউন বাস’ সার্ভিস নামে ব্যক্তি উদ্যোগে সিলেটে গণপরিবহন সেবা চালু হয়েছিলো। তবে নানা কারণে লোকসানের মাথায় বছর তিনেক আগে বন্ধ হয়ে যায় এই সেবা।

এবারও নিটলস মটরসের সহযোগিতায় ‘নগর এক্সপ্রেস’ চালু করছে সিটি করপোরেশন। গত এপ্রিলে নিটল মটরসের চেয়ারম্যান আব্দুল মাতলুব আহমাদের সঙ্গে সিটি মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী এ ব্যাপারে বৈঠক করেন। ওই বৈঠকেই ‘নগর এক্সপ্রেস’-এর জন্য মিনিবাস প্রদানে সম্মত হয় নিটল মটরস।

এ ব্যাপারে সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী বলেন, নগর এক্সপ্রেস চালুর সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। এসব বাস চলাচলের জন্য ইতোমধ্যে নগরীর সড়কগুলো প্রশস্ত করা হয়েছে। শীঘ্রই এই সেবা চালু হবে।

সিটি করপোরেশন পরিবহন শাখার কর্মকর্তারা জানান, গণপরিবহন না থাকার কারণে নগরবাসীকে প্রতিনিয়ত দুর্ভোগে পড়তে হয়। এই সঙ্কটকে কাজে লাগিয়ে যাত্রীদের জিম্মি করে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করে রিকশা ও অটোরিকশা চালকরা। আর অবৈধ রিকশা-অটোরিকশার কারণে নগরজুড়ে লেগে থাকে যানজট। নগরীর যানজট নিরসন ও যাত্রীদের দুর্ভোগ লাগবে সিটি করপোরেশন এই পরিবহন সেবা চালু করছে বলে জানান কর্মকর্তারা।

‘নগর এক্সপ্রেস’ চলাচলের রুটও চূড়ান্ত করেছে সিটি করপোরেশন। প্রাথমিকভাবে এই বাসগুলো টুকেরবাজার থেকে ওসমানী হাসপাতাল সড়ক ও বন্দরবাজার হয়ে হেতিমগঞ্জ ও টুকেরবাজার থেকে বটেশ্বর যাবে। এছাড়া সুরমা মার্কেট পয়েন্ট থেকে হেতিমগঞ্জ ও বিমানবন্দর থেকে কদমতলী হয়ে মোগলাবাজারের হাজিগঞ্জে যাবে। ইতোমধ্যে চালকসহ সুপারভাইজার নিয়োগ সম্পন্ন হয়েছে। ভাড়া থাকবে ২০টাকার মধ্যে। যাত্রীদের টিকিট কেটে বাসে চড়তে হবে।

এ ব্যাপারে সিলেট সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলর ও নগর এক্সপ্রেস সিটি বাস মালিক গ্রুপের আহবায়ক মখলিছুর রহমান কামরান জানান, প্রথম ছয়মাস টিকিট কেটে যাত্রীদের যাতায়াতের ব্যবস্থা থাকলেও পরে ডিজিটাল পেমেন্টের মাধ্যমে যাতায়াত করতে পারবেন নগরবাসী। আশা করি নগরবাসী সুলভ মূল্যে আরামদায়ক ও নিরাপদ ভ্রমণে এটি নতুন মাত্রা যোগ করবে।

কমেন্ট