আ’লীগ ক্ষমতার জন্য বেশামাল হয়েছে: বালাগঞ্জে মির্জা ফখরুল

সিলেট নিউজ টাইমস্ ডেস্ক:: জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট এর স্টিয়ারিং কমিটির মহাসচীব ও বিএনপি’র কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, আ’লীগ কতটা দুর্বল ও দেউলিয়া তার প্রমাণ ৩০ তারিখ পুলিশ-র‌্যাব ব্যবহার করে তারা ক্ষমতায় থেকেছে। আমরা ধিক্কার জানাই তাদের এই স্বৈরাচারী পন্থাকে। শেখ মুজিব গণতন্ত্র প্রতিষ্টার জন্য আন্দোলন করেছেন, আর আজ তার কন্যা গণতন্ত্র হত্যা করেছে। তাই দেশে যত রাজনৈতিক দল আছেসবাইকে ঐক্যবদ্ধ করে ভোটের অধিকার ফিরিয়ে আনতে স্বৈরাচার পতন করতে হবে। তারা নৌকায় ভোট না দেওয়ায় নোয়াখালীর সুবর্নচরে মহিলাকে গণধর্ষণ করেছে। মানুষ আজ তাদের অত্যাচারে গুমরে কাঁদছে। নির্যাচিত প্রতিটি মানুষের চোখের পানির ফোটা স্বৈরাচারী আওয়ামী অবস্থান ভেঙ্গে খান খান করে দেবে। আ’লীগ ক্ষমতার জন্য বেশামাল হয়েছে। ষোল কোটি মানুষের ভোটের অধিকার প্রতিষ্টা করতে সুহেলকে প্রাণ দিতে হয়েছে। সুহেল আজ একা নয়। সুহেলের রেখে যাওয়া অসমাপ্ত কাজ সমাপ্ত করার জন্য আজ দেশের কোটি কোটি মানুষ এক কাতারে এসেছে। সুহেল গণতন্ত্র প্রতিষ্টার জন্য জীবন দিয়েছে। গনতন্ত্র প্রতিষ্টার আন্দোলনে আমাদের সকলকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে।

তিনি গতকাল ১৪ জানুয়ারী সোমবার বেলা সাড়ে ৩টায় সিলেটের বালাগঞ্জ উপজেলার পশ্চিম গৌরীপুর ইউনিয়নের নলজুর গ্রামে বালাগঞ্জ উপজেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক (গেল ৩০ডিসেম্বর ভোট কেন্দ্রে গুলিবিদ্ধ নিহত) সায়েম আহমদ সুহেলের বাড়ীতে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট এর কেন্দ্রীয় নেতা আ স ম আব্দুর রব, বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী, মোস্তফা মোহসীন মন্টু, সুব্রত চৌধুরীসহ কেন্দ্রীয় ও স্থানীয় নেত্রীবৃন্দদের নিয়ে কবর জিয়ারত, সুহেলের পিতা মাতার সাথে সাক্ষাত পরবর্তি এক শোক সভায় উপরোক্ত কথা বলেন।

বালাগঞ্জ উপজেলা বিএনপি’র সভাপতি কামরুল হুদা জায়গীরদার এর সভাপতিত্বে ও বিএনপি নেতা আব্দুল আহাদ জামালের উপস্থাপনায় অনুষ্টিত শোক সভায় বক্তব্য রাখেন, জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের কেন্দ্রীয় নেতা জেএসডি সভাপতি আ স ম আব্দুর রব, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী, গণফোরাম এর সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মোহসীন মন্টু, নির্বাহী সভাপতি সুব্রত চৌধুরী, এম ইলিয়াছ আলীর ছোট ভাই জেলা বিএনপি’র সহ সভাপতি এম আছকির আলী, নিহত সুহেলের চাচাত ভাই সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান বিএনপি নেতা লুৎফুর রহমান। উপস্থিত ছিলেন, সিলেট সিটি’র মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী, বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা খন্দকার আব্দুল মুক্তাদির, জেলা বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক আলী আহমদ, বিএনপি নেতা সাবেক সংসদ সদস্য শফি আহমদ চৌধুরী, কলিম উদ্দিন মিলন, ছাতক উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান, ওসমানীনগর উপজেলা চেয়ারম্যান ময়নুল হক চৌধুরী,বালাগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান হাজী আব্দাল মিয়া, ওসমানীনগর উপজেলা বিএনপি’র সভাপতি সৈয়দ মতাহির আলী চেয়ারম্যান,সাধারণ সম্পাদক এসটিএম ফখর উদ্দিন চেয়ারম্যান, সাবেক সাধারণ সম্পাদক ইমরান রব্বানী চেয়ারম্যান প্রমূখ।

সভায় আ স ম আব্দুর রব বলেন,“ মানুষের ভোটাধিকার প্রতিষ্টা করতে সুহেল তার জীবন দিয়ে প্রমাণ করেছে সে অন্যায়ের কাছে মাথা নত করতে শিখেনি। আপনারা যারা সুহেলের সাথী সঙ্গী এসেছেন আগামী দিনে স্বৈরাচারী সরকারের পতন ঘটাতে ষোল কোটি জনতাকে নিয়ে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে।

বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী বলেন, আপনারা যদি ধৈর্য্য ধরে জনগনকে সাথে নিয়ে তাদের বিরুদ্ধে আন্দোলন করেন, তাহলে মুক্তি পাবেন। এই সভা থেকে বাড়িতে গিয়ে নিরবে চিন্তা করুন। যখন নিজেদের তৈরী করতে পরবেন তখন আর খালেদা জিয়াকে জেলে থাকতে হবেনা। এক মুহুর্তও স্বৈরাচার হাসিনা তখন ক্ষমতায় থাকতে পারবেনা।

নিহতের বড় ভাই সাবেক চেয়ারম্যান লুৎফুর রহমান বলেন, “এলাকায় সমাজ সেবায় তাদের পরিবারের অনেক অবদান রয়েছে। সমাজে আমাদের মোকাবেলা করতে না পেরে নির্বাচনী কেন্দ্রে আওয়ামীলীগ সন্ত্রাসীরা গুলি করে আমার ছোট ভাই সায়েম আহমদ সুহেল কে হত্যা করেছে। আমরা এ হত্যা কান্ডের বিচার চাই”।

নেত্রীবৃন্দ মরহুম সায়েম আহমদ সুহেলের কবর জিয়ারত করে তারবৃদ্ধ পিতা মো: ফজলু মিয়া ও মাতা রুকিয়া বেগমকে দেখতে বাড়িতে গেলে নিহতের বৃদ্ধা মা রুকিয়া বেগম কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন। তিনি বাকরুদ্ধ হয়ে বলেন, আমার ছেলেকে তারা কেন খুন করেছে? পাশেই বসা বৃদ্ধ পিতা ফজলু মিয়া ফেল ফেল করে কাঁদছিলেন। মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর তখন তাদের শান্তনা দেন। এসময় মির্জা আলমগীর বলেন, আপনার ছেলে দেশের জন্য, গণতন্ত্রের জন্য জীবন দিয়েছেন। আমরা তার জন্য দোয়া করতে এসেছি। এসময় মির্জা আলমগীর নিহত সুহেলের মা বাবাসহ উপস্থিত সকলকে নিয়ে নিজেই হাত উঠিয়ে উচ্চস্বরে কান্নারত অবস্থায় দোয়া করেন।

প্রসঙ্গত, গত ৩০ ডিসেম্বর ২টায় একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আজিজপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে পুলিশের গুলিতে নিহত হন বালাগঞ্জ উপজেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক সায়েম আহমদ সুহেল।

কমেন্ট

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.