বিয়ানীবাজারে শিক্ষকের প্রহারে হাসপাতালে ছাত্রী

90 total views, 2 views today

নিউজ ডেস্ক:: বিয়ানীবাজার বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক মকরম আলী মকর নামক জনৈক শিক্ষকের বেধড়ক প্রহারে গুরুতর আহত হয়েছে এক ক্ষুদে শিক্ষার্থী। (সোমবার) সকাল ১১ টার দিকে এই ঘটনা ঘটে।

মাথায় আঘাত পাওয়ার কারণে সুহাদা বেগম নামের ষষ্ঠ শ্রেণির ওই শিক্ষার্থী ক্লাসেই গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়ে। এরপর তাকে বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা আহত অবস্থায় বিয়ানীবাজার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়। সেখান থেকে তাকে তাঁর বাড়িতে দিয়ে আসেন শিক্ষকরা। কিন্তু পরবর্তীতে তার শারিরীক অবস্থার অবনতি হলে তার পরিবারের লোকজন তাকে সিলেটে ইবনে সিনা হাসপাতালে নিয়ে যান। বর্তমানে সেখানেই আহত সুহাদার চিকিৎসা চলছে।

আহত ক্ষুদে শিক্ষার্থী সুহাদা পৌর এলাকার সুপাতলা গ্রামের ইসলামুল হক ইসলামের মেয়ে। এঘটনায় অভিভাবক মহলে ক্ষোভের সঞ্চার হয়েছে।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত শিক্ষক মকরম আলী’র সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি প্রথমে মারার বিষয়টি অস্বীকার করেন। পরবর্তীতে এই বিষয়ে আর কথা না বলে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের সাথে কথা বলার জন্য বলে ফোনের লাইন কেটে দেন।

এরপর বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জিয়া উদ্দিন আহমদের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমি বর্তমানে ঢাকায় আছি। বিষয়টি শোনা মাত্রই আমি ওই শিক্ষার্থীর অভিভাবকদের সাথে কথা বলেছি। মেয়েটির চিকিৎসার জন্য যতটুকু সহযোগিতা প্রয়োজন আমরা সবই করবো। তিনি বলেন, ঢাকা থেকে এসে ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবো।

এ বিষয়ে বিয়ানীবাজার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কাজী আরিফুল ইসলাম বলেন, আমি বিষয়টি শুনেছি। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের সাথে কথা বলেছি অভিযুক্ত ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য।

তিনি বলেন, যেহেতু সরকার কর্তৃক শিক্ষার্থীদের বেত্রাঘাত করা নিষেধ কিন্তু ওই শিক্ষক সরকারের সেই নির্দেশনা অমান্য করে অপরাধ করেছেন। সুতরাং ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে অবশ্যই ব্যবস্থা নেয়া হবে।

কমেন্ট
শেয়ার করুন
  • 10
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    10
    Shares