মাদ্রাসায় জাতীয় শোক দিবস সহ বিশেষ দিবস পালনে অনিহা, প্রিন্সিপাল–ই বিয়ের কাজী

63 total views, 1 views today

নিজেস্ব প্রতিবেদক::
শোকাবহ ১৫ আগস্ট, জাতীয় শোক দিবস। বাংলাদেশ ও বাঙালির সবচেয়ে হদয়বিদারক ও মর্মস্পর্শী শোকের দিন। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৩৯তম শাহাদাত্বার্ষিকী। ১৯৭৫ সালের এই দিনের কালরাত্রিতে ঘটেছিল ইতিহাসের সেই কলঙ্কজনক ঘটনা। কিছু উচ্ছৃঙ্খল ও বিপথগামী সৈনিকের হাতে সপরিবারে প্রাণ দিয়েছিলেন সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি, স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। রাষ্ট্রীয়ভাবে যথাযোগ্য মর্যাদায় ও ভাবগম্ভীর পরিবেশে পালিত হয় জাতির জনকের শাহাদাত বার্ষিকী। বাঙালি জাতি গভীর শোক ও শ্রদ্ধায় যখন স্মরণ করে তাঁর শ্রেষ্ঠ সন্তানকে । নৃশংস ওই ঘটনায় বাংলার অবিসংবাদিত নেতা বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে সেদিন আরো যারা প্রাণ হারিয়েছিলেন তারা হলেন: জাতির পিতার সহধর্মিণী বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব, পুত্র শেখ কামাল, শেখ জামাল, শেখ রাসেল, পুত্রবধূ সুলতানা কামাল, রোজী জামাল, ভাই শেখ নাসের ও কর্নেল জামিল। খুনিদের বুলেটে সেদিন আরো প্রাণ হারান বঙ্গবন্ধুর ভাগ্নে মুক্তিযোদ্ধা শেখ ফজলুল হক মনি, তার অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী আরজু মনি, ভগ্নিপতি আবদুর রব সেরনিয়াবাত, শহীদ সেরনিয়াবাত, শিশু বাবু, আরিফ রিন্টু খানসহ অনেকে।

প্রতিবছর ১৫ আগস্ট আসে বাঙালির হদয়ে শোক আর কষ্টের দীর্ঘশ্বাস হয়ে। আগস্ট মাস বাংলাদেশের মানুষের কাছে শোকের মাসে পরিণত হয়েছে এই দিনটির জন্যই। আর এমন বিশেষ দিন গুলোকে ডিলেঢালা ভাবে পালন করে আসছেন সিলেটের গোলাপগঞ্জ থানাধীন বরায়া উত্তর ভাগ আলিয়া মাদ্রাসার প্রিন্সিপাল মাওলানা আব্দুস ছবুর। বিশেষ দিন গুলো পালনের জন্য মাদ্রাসার ১ম শ্রেণী হতে ৫ম শ্রেণী পযর্ন্ত অলিখিত ছুটি ঘোষণা দেয়া হয় ১৪ই আগষ্ট ২০১৮ইংরেজী। এবং ১৫ই আগষ্ট শোক দিবস পালনে সময় ৭০০জন ছাত্র-ছাত্রী ও ১৫শিক্ষক এর মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মাত্র ৩০জন ছাত্র-ছাত্রী ও ৭জন শিক্ষক।

এব্যাপারে প্রতিবেদক (অত্র মাদ্রাসার অভিবাবক কমিটির সদস্য) সালাহ্ উদ্দিন মোহাম্মদকে মাদ্রাসার প্রিন্সিপাল মাওলানা আব্দুস ছবুর জানান, মাদ্রাসায় এসব অনুষ্টান কোন ভাবে পালন করলেই চলে। আমরা আমরা পালন করেছি। সরকারের নির্দেশ দেয়া তাই। এখানে ম্যানেজিং কমিটির দাওয়াত বা উপস্থিতির প্রয়োজন আছে আমি তা মনে করিনা। আর মাদ্রাসার দ্বায়িত্ব ছাড়াও আমার আরো দ্বায়িত্ব আছে আমি কুচাই ইউনিয়ন সিলেট এর প্রধান কাজী এজন্য দাওয়াত দেয়ার তেমন সময় পাইনা। এসব নিয়ে বেশী খবর নেয়ার চেষ্টা করলে কমিটিতে পদ হারাবেন, ছাত্রদের দিয়ে আন্দোলন ও শিক্ষকদের দিয়ে ক্লাস বর্জন করে এর ব্যবস্থা নেব।

কমেন্ট
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •