ছাতকে তিনদিন ব্যাপী ফলদ বৃক্ষমেলার উদ্বোধনী সভায় ব্যানার বিতর্ক !!

118 total views, 1 views today

শংকর-দত্ত:: ছাতকে দিন ব্যাপী ফলদ বৃক্ষমেলা উদ্বোধন করা হয়েছে। ৬ অাগষ্ট, সোমবার সকালে বৃক্ষমেলা উপলক্ষে উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উদ্যোগে এক বর্নাঢ্য র‌্যালী ও উপজেলা মিলনায়তনে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এর আগে উপজেলা পরিষদ চত্ত্বরে আয়োজিত বৃক্ষমেলার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন উপজেলা চেয়ারম্যান অলিউর রহমান চৌধুরী বকুল।

বৃক্ষমেলা উপলক্ষে বিতরণকৃত নিমন্ত্রন পত্রে ও আলোচনা সভার ব্যানারে উপজেলা চেয়ারম্যানর নাম প্রটোকল অনুযায়ী লেখা হয়নি বলে উপজেলা চেয়ারম্যান অলিউর রহমান চৌধুরী বকুল তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করতে দেখা গেছে। এ ঘটনার জর ধরে উপজেলা চেয়ারম্যানের নির্দেশে সভা শুরুর আগেই মঞ্চে সাটানো আলোচনা সভার ব্যানার খুলে ফেলা হয়। বিষয়টি নিয়ে সভায় উপস্থিত লোকজনের মধ্যে শুরু হয় আলোচনা-সমালোচনা। ব্যানার খুলে নেয়ার বিষয়ে বিস্ময় প্রকাশ করে আওয়ামীলীগ নেতা সৈয়দ আহমদের বক্তব্যের কঠোরভাবে জবাব দেন উপজেলা চেয়ারম্যান।

উপজেলা চেয়ারম্যান অলিউর রহমান চৌধুরী বকুল তার বক্তব্যে বলেন, প্রধান অতিথি সংসদ সদস্য যেখানে অনুপস্থিত, সেখানে এ ব্যানারটির কোন প্রয়োজনীয়তা ছিল না। যে কারনে তিনি এ ব্যানারটি খুলে ফেলার নির্দেশ দিয়েছেন। তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করে আরো বলেন, ব্যানারে ও দাওয়াত পত্রে উপজেলা চেয়ারম্যানের নাম প্রটোকল অনুযায়ী লেখা হয়নি। আর এ বিষয়টিকে তিনি সমর্থন করে এর ধারাবাহিতকা সৃষ্টি করতে পারেন না। সংঘত কারনে ব্যানার ছাড়াই আলোচনা সভা করতে হয়েছে। বিশেষ উদ্দেশ্যে এসময় তিনি বিগত দিনে শিলুয়া-পেকুয়া ও গুয়া-পাকুয়া জলমহাল নিয়ে লুটপাটের চিত্রও তুলে ধরেন।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবেদা আফসারী জানান, প্রধানমন্ত্রী নির্দেশিত বৃক্ষমেলার সভা থেকে ব্যানার সরিয়ে ফেলার বিষয়টি আমাদের মর্মাহত করেছে। শোকের মাসে উপজেলা চেয়ারম্যানের কাছ থেকে এমন আচরন তিনি কখনো আশা করেননি। পরে ব্যানার ছাড়াই বৃক্ষমেলার সভা সম্পন্ন হয়।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবেদা আফসারীর সভাপতিত্বে ও উপজেলা উদ্ভিদ সংরক্ষণ কর্মকর্তা আব্দুল হামিদের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ কেএম বদরুল হক। সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, উপজেলা প্রানী সম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ মাসুদ সিদ্দিকী, উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মানিক লাল দাস, আওয়ামীলীগ নেতা সৈয়দ আহমদ, সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আনোয়ার রহমান তোতা মিয়া, এ ছাড়া ডাঃ রাজিব চক্রবর্তী, উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা শরীফুল আলম, উপজেলা পরিসংখ্যান কর্মকর্তা মনিরুজ্জামান খান, সমাজসেবা কর্মকর্তা আমিনুল ইসলাম খান, সমবায় কর্মকর্তা বিজিত রঞ্জন কর, ব্রীজ একাডেমির চেয়ারম্যান আইয়ূব করম আলী বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। সভায় বক্তব্য রাখেন, কৃষক সমরুজ আলী প্রমুখ। এসময় প্রধান শিক্ষক মোনায়েম খান, নিত্যরঞ্জন দাস, দুলন তরফদার, পংকজ দত্তসহ উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা-কর্মচারী, শিক্ষক-শিক্ষিকা, শিক্ষার্থী ও কৃষকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। সভা শেষে শহরের ৭টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ১০ করে ছারাগাছ বিতরণ করা হয়। এদিকে তিনদিন ব্যাপী বৃক্ষমেলাকে ঘিরে উপজেলা চত্ত্বরে ডজন খানেক স্টল বসানো হয়েছে। স্টলগুলো সাজানো হয়েছে দেশীয় বিভিন্ন ফলদ, বনজ ও ওষুধী বৃক্ষের চারা দিয়ে। উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কেএম বদরুল হক জানান, এ বছর বৃক্ষ মেলায় দেশীয় বৃক্ষ চারা ছাড়াও বেশ কিছু মুল্যবান বিদেশী বৃক্ষের চারা রয়েছে।

বৃক্ষমেলা থেকে এসব চারা বৃক্ষ প্রেমীরা অপেক্ষাকৃত কম মূল্যে ক্রয় করতে পারবেন।

কমেন্ট
শেয়ার করুন
  • 77
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    77
    Shares