নবীগঞ্জে পাহাড়ি এলাকা থেকে শরীরবিহীন মাথা উদ্ধার

67 total views, 1 views today

হবিগঞ্জের নবীগঞ্জে শরীরবিহীন মাথা উদ্ধার করেছে পুলিশ। গত ২ জুন নবীগঞ্জের দুর্গম পাহাড়ি এলাকা থেকে এক কিশোর কাওছারের আগুনে পোড়া মাথাবিহীন লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। ধারণা করা হচ্ছে, মাথাটি সেই কিশোরের। তবে ডিএনএ টেস্ট ছাড়া মাথাটি কার এর নিশ্চয়তা দিচ্ছে না পুলিশ।

মঙ্গলবার (২৪ জুলাই) বিকেলে স্থানীয়রা দেওলাবাড়ী কালভার্টের উপর পলিথিন মোড়ানো অবস্থায় মাথাটি দেখতে পান। খবর পেয়ে পুলিশ এটি উদ্ধার করে বলে জানিয়েছেন নবীগঞ্জ-বাহুবল সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার পারভেজ আলম চৌধুরী।

তিনি বলেন, কাওছারের পরিবারের লোকজনের ভাষ্য, এটা কাওছারেরই মাথা। তবে পুলিশ এখনও নিশ্চিত করে বলতে পারছে না। মাথাটি হবিগঞ্জ আধুনিক জেলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। সেখান থেকে ডিএনএ টেস্টের জন্য নির্ধারিত স্থানে পাঠানো হবে। ডিএনও টেস্টের রিপোর্ট পেলেই নিশ্চিত হওয়া যাবে।

গত ২৯ মে সন্ধ্যার পর কাওছার তাদের বাড়ির নিকটে বাড়ির পাশে একটি চা-দোকানে যায়। সেখান থেকে রাত সাড়ে ১১টার দিকে একই এলাকার কাছুম আলীর ছেলে দুরুদ মিয়ার সঙ্গে বাড়ির ফেরার পথে নিখোঁজ হয় কাওছার। পরবর্তীতে ২ জুন পাহাড়ি এলাকা থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়। নিহত কাওছার পানিউমদা ইউনিয়নের চাতল গ্রামের হায়দর আলীর পুত্র।

এ ঘটনায় ২ জুন চাতল গ্রামের কাছুম আলীর ছেলে দুরুদ মিয়া (২৬) ও সুফি মিয়ার ছেলে জগরুল মিয়াকে (৩০) আটক করা হয়। ওইদিনই কাওছারের বাবা বাদী হয়ে থানায় মামলা করেন। পরে খুনের সঙ্গে জড়িত থাকার কথা পুলিশের কাছে স্বীকার করে দুরুদ ও জগরুল।

কমেন্ট
শেয়ার করুন
  • 8
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    8
    Shares