মুক্তামনিকে আর বাঁচানো গেল না

নিউজ ডেস্ক:: মুক্তামনিকে আর বাঁচানো গেল না। বাবা-মা আর চিকিৎসকদের সব চেষ্টা ব্যর্থ করে শিশু মুক্তামনি তার কষ্টের জীবন ছেড়ে চিরদিনের জন্য চলে গেল না ফেরার দেশে। সাতক্ষীরা সদর উপজেলার কামারবায়সা গ্রামে বাবা-মায়ের সামনেই বুধবার সকাল ৬টা ৫৯ মিনিটে মৃত্যু হয় বিরল রোগ হেমানজিওমায় আক্রান্ত ১২ বছরের শিশুটির।

শোকে বিহ্বল মুক্তামনির বাবা ইব্রাহিম হোসেন বলেন, গত কয়েকদিন ধরেই তার অবস্থা খারাপ হচ্ছিল। আজ ভোরে বমি শুরু হয়। একবার পানি খেতে চাইল। পানি আনতে আনতে সব শেষে।

ডান হাতে দেড় বছর বয়সে হাতে বড় আকারের ফোলা নিয়ে গত ১১ জুলাই ঢাকা মেডিকেলে ভর্তি হয় মুক্তামনি। চিকিৎসকরা তার রোগ শনাক্ত করেন রক্তনালীর এক ধরনের টিউমার হিসেবে। ঢাকা মেডিকেলে চিকিৎসকের একটি দল মুক্তামনির হাতে ছয় দফা জটিল অস্ত্রোপচার করেন। কিছুটা ভালো বোধ করলে গত বছরের ২২ ডিসেম্বর তাকে বাড়ি ফেরার অনুমতি দেন চিকিৎসকরা।

কিন্তু গত কিছুদিনে মুক্তামনির অবস্থার অবনতি হলে ইব্রাহিম হোসেন আবার ঢাকা মেডিকেলে যোগাযোগ করলে চিকিৎসকরা ঈদের পর মেয়েকে ঢাকায় যেতে বলেছিলেন। কিন্তু তার আগেই মুক্তামনি মারা যায়।

কমেন্ট

Leave a Reply

Your email address will not be published.