বিকাশ ও বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রের উদ্যোগে বাংলাদেশ ব্যাংক স্কুলে বই বিতরণ

74 total views, 1 views today

সিলেট ৭ মে ২০১৮, সোমবার- ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে বইয়ের আলোয় আলোকিত করার লক্ষ্যে দেশের শীর্ষস্থানীয় মোবাইল ফিনান্সিয়াল সার্ভিস প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান বিকাশ লিমিটেডের সহায়তায় আজ মহানগরীর শাহজালাল উপশহরের বাংলাদেশব্যাংক স্কুলে শিক্ষার্থীদের মাঝে বইপড়া কর্মসূচি সম্প্রসারণের লক্ষ্যে বিভিন্ন শ্রেণির বই বিতরণ করেছে বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্র।

বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রের দেশভিত্তিক উৎকর্ষ (বইপড়া) কার্যক্রমের আওতায় বইপড়া কর্মসূচির সম্প্রসারণ অনুষ্ঠানে অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট লেখক ও অভিনেতা খায়রুল আলম সবুজ এবং বিকাশ লিমিটেড এর জেনারেল ম্যানেজার রেগুলেটরি এন্ড গর্ভণমেন্ট অ্যাফেয়ার্স এন্ড কর্পোরেট অ্যাফেয়ার্স হুমায়ুন কবির ও বাংলাদেশ ব্যাংক স্কুলের প্রধান শিক্ষক মোঃ রুহুল আমিন। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রের যুগ্ম-পরিচালক [প্রোগ্রাম] মেসবাহ উদ্দিন আহমেদ সুমন।

 

স্কুল ও কলেজের শিক্ষার্থীদের জন্য পরিচালিত বইপড়া কর্মসূচি ‘দেশভিত্তিক উৎকর্ষ কার্যক্রম’এর সাথে ২০১৪ সাল থেকেই সম্পৃক্ত আছে বিকাশ। এ পর্যন্ত বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রের এই কর্মসূচিতে প্রায় ১ লাখ ৭৮ হাজার বই প্রদান করেছে বিকাশ।

বিকাশ বিশ্বাস করে সহজ, নিরাপদ ও সাশ্রয়ী মূল্যে মোবাইল আর্থিক সেবা প্রদানের মাধ্যমে তারা যেমন মানুষের জীবনমান উন্নত করার প্রচেষ্টা অব্যাহত রেখেছে, তেমনি বইপড়া কর্মসূচিতে যুক্ত থেকে মানুষের আত্ম-উন্নয়ন সহ সামগ্রিক উন্নয়নে ভূমিকা রাখতে পারছে।

দেশে আলোকিত মানুষ গড়ার স্বপ্ন নিয়ে বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্র গত ৪০ বছর ধরে সারাদেশে স্কুল ও কলেজের শিক্ষার্থীদের জন্য নানাবিধ উৎকর্ষ কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে। দেশভিত্তিক উৎকর্ষ কার্যক্রম এর মধ্যে সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য কর্মসূচি। বর্তমানে সারাদেশে এই কর্মসূচির আওতায় প্রায় ২০০০ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ২ লাখ শিক্ষার্থী রয়েছে।

২০১১ সালে কার্যক্রম শুরু করা বিকাশ ব্যাংকিং সেবা বহির্ভূত বাংলাদেশের একটি বিশাল জনগোষ্ঠিকে নানা ধরনের মোবাইল ফিনান্সিয়াল সার্ভিস দিয়ে আসছে। বিকাশ-ব্র্যাক ব্যাংক, ইউএস ভিত্তিক মানি ইন মোশন, ওর্য়াল্ড ব্যাংক এর অর্ন্তগত প্রতিষ্ঠান ইন্টারন্যাশনাল ফিন্যান্স কর্পোরেশন এবং বিল অ্যান্ড মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশনের যৌথ মালিকানাধীন একটি প্রতিষ্ঠান।

কমেন্ট
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •