দক্ষিণ সুনামগঞ্জ সড়কে দূর্ঘটনায় পুলিশ সদস্য নিহত

42 total views, 1 views today

সিলেট সুনামগঞ্জ আঞ্চলিক মহা সড়কের জয়কলস আহসানমারা ব্রীজের পূর্ব পাড়ে কাভার্ট ভ্যানের ধাক্কায় দক্ষিণ সুনামগঞ্জ থানা পুলিশের দুই পুলিশ সদস্য গুরুতর আহত হয়েছেন। আশাংকাজনক অবস্থায় এক পুলিশ সদস্যকে সিলেট ওসমানী হাসপাতালে প্রেরণ করা হলে কনস্টেবল ইমান আলী চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান ।

আহত এসআই মীর হোসেন ছাগলনাইয়া থানাধীন পূর্ব ছাগলনাইয়া গ্রামের মোঃ ছাদেক মজুমদারের পুত্র ও কনস্টেবল ইমান আলী শ্রীমঙ্গল থানাধীন কুঞ্জবন গ্রামের আব্দুল করিমের পূত্র।তাহারা দীর্ঘদিন ধরে দক্ষিণ সুনামগঞ্জ থানায় কর্মরত আছেন। এসময় স্থানীয় লোকজন কাভার্ড ভ্যান চালক সুমন হোসেন(৩০) ও হেলপার রিপন মিয়াকে আটক করেন পুলিশে।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, সোমাবার সন্ধায় দক্ষিণ সুনামগঞ্জ থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ মো. ইখতিয়ার উদ্দিনের নির্দেশে ওয়ারেন্ট তামিল করা কালে থানা পুলিশের এএসআই মীর হোসেন(৪২) ও তাহার সঙ্গীয় কনস্টেবল ইমান আলী(২৪)কে নিয়া মোটর সাইকেল যোগে নোয়াখালী বাজারের উদ্দেশ্যে রওয়ানা দেন। পতিমধ্যে জয়কলস আহসানমারা ব্রীজের পূর্ব পাড়ে পৌছিলে সুনামগঞ্জ থেকে সিলেটগামাী একটি কাভার্ট ভ্যান (ঢাকামেট্রো-ট-১৩-২১৬১) তাদেরকে ধাক্কা দেয়। এতে এএসআই মীর হোসেন সহ কনস্টেবল ইমান আলী মারাত্মক আহত হন। গুরুতর আহত অবস্থায় স্থানীয় লোকজন তাহাদেরকে সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে নিয়া গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার এএসআই মীর হোসেনকে চিকিৎসা প্রদান করেন। এসময় গুরুতর আহত ইমান আলীকে আশাংকাজনক অবস্থায় সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করা হলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সোমবার দিবাগত রাত ৯টা ৫০ মিনিটের সময় মারা যান। চালক সুমন মিয়ার বাড়ী চাদপুর জেলার মতলত উত্তর থানার রাজুর কান্দিগ্রামের গিয়াস উদ্দিন বকাউলের ছেলে ও হেলপার রিপন মিয়া ময়মনসিংহ জেলার ফুলবাড়ী থানা লক্ষিপুর গ্রামের নুরুল ইসলামের ছেলে।

দক্ষিণ সুনামগঞ্জ থানা অফিসার ইনচার্জ মো. ইখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী জানান, আহত পুলিশ সদস্যদের চিকিৎসা প্রদান করা হয়েছে। তবে কনস্টেবল ইমান আলী চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করিয়াছে ।

কমেন্ট
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •