জোড়া খুনের মামলায় ৪৯ আসামীর জামিন নামঞ্জুর

112 total views, 1 views today

দক্ষিণ সুরমার বরইকান্দি এলাকায় দু’পক্ষের সংঘর্ষে নিহত হওয়া শ্রমিক লীগ ও যুবলীগ নেতা হত্যা মামলায় ৪৯জন আসামির জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানো নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। মঙ্গলবার সকাল ১১টায় সিলেট মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট ১ মামুনুর রহমান সিদ্দিকীর আদালত ৫১ আসামিকে তোলা হলে তাদের মধ্যে বয়স বিবেচনায় দুইজনের জামিন মঞ্জুর করেন এবং ৪৯ জন আসামির জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর জন্য নির্দেশ দেন। এসএমপির সহকারী কমিশনার (প্রসিকিউশন) অমূল্য কুমার চৌধুরী বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

যাদেরকে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে সে সব আসামীরা হলেন-দক্ষিণ সুরমার বরইকান্দি গ্রামের মৃত কাজী কুতুব উদ্দিনের পুত্র কাজী ফরহাদ (৩২), কাজী কাচা মিয়ার পুত্র কাজী নুমান আহমদ (৩০), আব্দুল ওয়াদুদের পুত্র ফারহান আহমদ (২৭), মৃত ধন মিয়ার পুত্র কাজী ময়নুল (৩৭), মৃত আমই এর পুত্র রায়হান আহমদ (৩০) ও সাহাব আহমদ (৩০), মখলিছুর রহমানের পুত্র রাজীকুর রহমান রাজীক (৩০), মৃত আব্দুল গফুরের পুত্র জাকির আহমদ (২৮), সারো মিয়ার পুত্র সাবিক আহমদ (৩০) ও সাহেল আহমদ (২৮), সাদিক মিয়া ড্রাইভারের পুত্র মুন্না আহমদ (৩০) ও মান্না আহমদ (২৮), রিয়াছদ উল্লাহর পুত্র সুজন উল্লাহ (৪০) ও রাজন মিয়া (৪২), মৃত তোরন মিয়ার পুত্র সেলিম ড্রাইভার (৪২), মৃত আব্দুর রাজ্জাকের পুত্র আমজদ (৩৫), মৃত তরুন মিয়ার পুত্র ফয়ছল আহমদ (৩০) ও আলাউদ্দিন (২৮), মৃত গৌছ আলীর পুত্র ছাদেক মিয়া ড্রাইভার (৫২) ও লায়েক আহমদ (৩০), ফুকু মিয়ার পুত্র ইকবাল আহমদ (২৭) ও লিমন আহমদ (৩৩), মখন মিয়ার পুত্র টিপু আহমদ (৩৮), আমীর আলীর পুত্র রুমান মিয়া (৪২), মৃত পংকি মিয়ার পুত্র কাশেম মিয়া (৩০), মৃত এখলাছ মিয়ার পুত্র খছরু মিয়া (৫৫) ও কাচা মিয়া (৫৩), খছরু মিয়ার পুত্র মুকিত মিয়া (৩০) ও শহীদ মিয়া (২৭), আব্দুল মজিদের পুত্র শফিক মিয়া (৫০), মৃত হাজী আছদ্দর আলীর পুত্র ইরা মিয়া (৫৬), মৃত এখলাছের পুত্র লায়েক আহমদ (৩২), মৃত মাখন মিয়ার পুত্র জুয়েল আহমদ (৩৫), সিরাজ মিয়ার পুত্র তারেক আহমদ (৩০) ও তায়েফ আহমদ (২৬), মৃত সিকন্দর আলীর পুত্র ফয়জুর রহমান (৫৫) ও তার ছেলে জাকের রহমান (২৮), খালিক মিয়ার পুত্র আফছর আহমদ (৩০), মইন উদ্দিন মনুর পুত্র মোঃ জাহাঙ্গীর (২৬) ও সুহেল আহমদ (৩০), মৃত ইলিয়াছ মিয়ার পুত্র তারেক (২৩), ওয়াহিদ মিয়ার পুত্র লুৎফুর (৪০), শাহজাহান মিয়ার পুত্র জাফর আহমদ (৩৫), আব্দুল মজিদের পুত্র এহসানুল হক সানু (৩৫), মোল্লারগাঁও ইউনিয়নের তেলিরাই গ্রামের মৃত নেছার মিয়ার পুত্র সাহেল শাহ (৩০), আকবর আলীর পুত্র আলী আব্বাছ (২৪) ও আলী বক্স (২৬), কোম্পানীগঞ্জের গৌলেরপাড় এলাকার নূর ইসলামের পুত্র বিল্লাল (২৪), আকমল আলীর পুত্র জাহাঙ্গীর (২৮)।

এছাড়া বরইকান্দি গ্রামের মৃত আব্দুল মজিদের পুত্র ফটিক আহমদ (৫৫) ও মৃত সিকন্দর আলীর পুত্র হাবিবুর রহমান (৬২) এ দুজনকে অসুস্থ্যতাজনিত কারণে বিজ্ঞ আদালত তাদের জামিন মঞ্জুর করেন।

মামলার বরাত দিয়ে আদালত সূত্র জানায়, গত ৬ মার্চ সকালে বরইকান্দি গ্রামের ১০নং রোডের বাসিন্দা ও কোম্পানীগঞ্জ ৩ নং তেলিখাল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল ওদুদ আলফু মিয়া এবং ৩নং রোডের বাসিন্দা বরইকান্দি ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি গৌছ মিয়ার পক্ষের লোকজনের মধ্যে সশস্ত্র সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলে গৌছ মিয়ার পক্ষের বাবুল আহমদ ও মাসুক মিয়া গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত হন। সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ হয়ে আহত হন আরো অত্যন্ত ৩৫ জন।
এ ঘটনায় গত ৮ মার্চ দক্ষিণ সুরমা থানায় নিহত বাবুল আহমদের ভাই সেবুল আহমদ ১১১ জনের নাম উল্লেখপূর্বক এবং আরো ৮’শ জনকে অজ্ঞাত আসামী করে দক্ষিণ সুরমা থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

কমেন্ট
শেয়ার করুন
  • 22
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    22
    Shares