নিজেকে সন্ত্রাসীদের হাতে তুলে দেয়া পুলিশের মৃত্যু

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: ফ্রান্সের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের একটি সুপারমার্কেটে জিম্মি ঘটনায় নিজের জীবন বাজি রাখা সাহসী পুলিশ কর্মকর্তা মারা গেছেন। শুক্রবার ওই হামলার ঘটনা ঘটে। লে. কর্নেল অ্যারোন্দ বেল্ট্রেম (৪৫) নামের ওই পুলিশ কর্মকর্তা নিজেকে সন্ত্রাসীদের হাতে তুলে দিয়ে বহু মানুষের জীবন বাঁচিয়েছেন। তিনি গুরুতর আহত অবস্থায় হাসপাতালে জীবন-মৃত্যুর সঙ্গে লড়াই করছিলেন।

প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাঁক্রো বলেন, লে. কর্নেল অ্যারোন্দ বেল্ট্রেম একজন দুঃসাহসী নায়ক। তিনি অসীম সাহসিকতা দেখিয়েছেন। শুক্রবার ফ্রান্সের দক্ষিণাঞ্চলীয় একটি মার্কেটে বেশ কয়েকজনকে জিম্মি করে রাখে সন্ত্রাসীরা। পরে সেখানে জিম্মিদের উদ্ধারে ছুটে যান নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা।

মার্কেটের ভেতর থেকে বেশ কয়েকজনকে জিম্মি অবস্থা থেকে উদ্ধার করা হয়। কিন্তু এক পর্যায়ে রেদোয়ানি লাকদিম নামে (২৫) বছর বয়সী এক বন্দুকধারীর কারণে ঘটনা অন্যদিকে মোড় নেয়। সালাহ আবদেস সালামকে মুক্তি দেয়ার দাবি জানান লাকদিম। ২০১৫ সালের ১৩ নভেম্বর প্যারিস হামলার ঘটনায় বেঁচে যাওয়া অন্যতম অভিযুক্ত ব্যক্তি হলেন আবদেস সালাম। প্যারিস হামলার ঘটনায় ১৩০ জন নিহত হয়।

পরে এক নারীকে জিম্মিদশা থেকে মুক্তির বিনিময়ে পুলিশ অফিসার লে. কর্নেল অ্যারোন্দ বেল্ট্রেম ভেতরে যান। কৌশলে তিনি ওই নারীকে মুক্ত করেন। পরে পুলিশের গুলিতে নিহত হন লাকদিম। অ্যারোন্দ বেল্ট্রেমের মৃত্যু খবর দিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জেরার্ড কলোম্ব টুইটারে বলেন, তিনি দেশের জন্য জীবন দিয়েছেন। ফ্রান্স কখনই তার বীরত্ব, সাহসিকতা এবং তার আত্মত্যাগের কথা ভুলবে না।

হামলার ঘটনার পর পরই এমানুয়েল ম্যাঁক্রো বলেন, লে. কর্নেল অ্যারোন্দ বেল্ট্রেম গুরুতর আহত হয়েছিলেন এবং হাসপাতালে জীবন মৃত্যুর লড়াই করেছেন তিনি। ওই হামলার ঘটনায় ১৬ জন আহত হয়েছে। এদের মধ্যে দু’জনের অবস্থা বেশ আশঙ্কাজনক। ওই হামলাকে সন্ত্রীসী হামলা হিসেবে উল্লেখ করেছেন এমানুয়েল ম্যাঁক্রো।

শুক্রবার সকালে একটি গাড়ি ছিনতাই করে গাড়ির যাত্রীকে হত্যা করেন লাকদিম। পরে ওই যাত্রীর মৃতদেহ খুঁজে পাওয়া গেছে। ওই ঘটনায় চালক আহত হয়। একদল পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়েন লাকদিম। গুলিতে এক পুলিশ সদস্য আহত হন।

পরে ত্রেবেস শহরের একটি সুপারমার্কেটে হামলা চালান লাকদিম। হামলার সময় সে চিৎকার করে বলতে থাকে, আমি দায়েসের (আইএস) যোদ্ধা। এরপর সে মার্কেটের এক কাস্টমার এবং স্টোরের এক কর্মীকে হত্যা করে। তার আগেই সে বেশ কয়েকজনকে জিম্মি করেন। লাকদিম ১৯৯২ সালের এপ্রিলে মরক্কোতে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ফ্রান্সের নাগরিক।এর আগে ২০১১ সালে অবৈধ অস্ত্র বহনের ঘটনায় দোষী সাব্যস্ত হন লাকদিম।

কমেন্ট
শেয়ার করুন
  • 13
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    13
    Shares