সাংবাদিক ফুলর ও তার ভাই রুহুলের হামলায় গুরুত্বর আহত রং মিস্ত্রি

দক্ষিণ সুরমায় দু দফা হামলার শিকার হয়ে গুরুত্ব আহত হয়েছেন এক যুবক। দক্ষিণ সুরমার রশিদপুরের বাসিন্দা লিটন নামের এই রং মিস্ত্রিকে পিঠিয়ে গুরুত্বর আহত করেছে দৈনিক মুক্তমতের দক্ষিণ সুরমার সাংবাদিক চঞ্চল মাহমুদ ফুলর ও তাঁর ছোট ভাই রুহুল। বড় ভাই ফুলরের সাংবাদিকতার প্রভাব খাটিয়ে নিজ বাড়িতে এবং পরবর্তী সময়ে লেইছ মার্কেটস্থ ফুলরের অফিসে নির্মমভাবে হামলা চালানো হয় লিটনের উপর।

জানা গেছে, সাংবাদিক চঞ্চল মাহমুদ ফুলরের মেয়ের বিয়ে ২৫ মার্চ। এ উপলক্ষ্যে তার বাড়ি রং করানোর জন্য রংয়ের ঠিকাদার লিটন আহমদকে কাজ দেন। সে অনুযায়ী গত দু সপ্তাহ থেকে ফুলরের এবং তার ছোট ভাই রুহুলের ঘরের কাজ করে আসছেন লিটন। গতকাল ২১ মার্চ বুধবার কাজ শেষ হলে কাজের পাওনা টাকা চাইলে কিসের টাকা বলে এই মিস্ত্রিকে বেদড়ক মারপিঠ করেন ফুলরের ছোট ভাই রুহুল। এ সময় ফুলরের বাড়ির লোকজন লিটনকে উদ্ধার করে রুহুলের বড় ভাই ফুলরের কাছে বিচার দিতে বলেন। এর পর লিটন সাংবাদিক ফুলরের লেইছ মার্কেটস্থ অফিসে গিয়ে অভিযোগ করেন। পরে ফুলর তাঁর ছোট ভাই রুহুলকে ডেকে এনে দুই ভাই মিলে আরেক দফা মারপিঠ করেন। এক পর্যায়ে রুহুল প্যান্টের বেল্ট খুলে মারাত্মকভাবে আঘাত করে লিটনের সাথে থাকা মোবাইল সেট এবং নগদ ৫০ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেন। এ সময় মার্কেটের অন্যান্য ব্যবসায়ীরা তাদের এমন আচরন দেখলেও দুই ভাইয়ের দুসাহসিকতার প্রতিবাদ করতে পারেননি কেউই।

এ ব্যাপারে মার্কেট কমিটির নেতৃবৃন্দ এবং শীর্ষ ব্যবসায়ীরা ঘটনাটি দেখে দেয়ার আশ্বাস প্রদান করলেও রুহুল রং মিস্ত্রি লিটনকে প্রাণে হত্যার হুমকি দেন।

এ ঘটনায় লেইছ সুপার মার্কেটের সভাপতি আবদুল ওয়াহিদ বলেন, ঘটনা সম্পর্কে আমরা অবগত আছি। এ ব্যাপারে আমরা ঘটনার সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করব।
এ ব্যাপারে দক্ষিণ সুরমা থানার ওসি খায়রুল ফজল বলেন, আমরা কোনো অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

কমেন্ট
শেয়ার করুন
  • 1
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    1
    Share