জেল জুলুম নিপীড়ন চালিয়ে জিয়ার সৈনিকদের দমিয়ে রাখা যাবেনা:আলী আহমদ

37 total views, 1 views today

সিলেট জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আলী আহমদ বলেছেন- হামলা-মামলা, জেল-জুলুম, নিপীড়ন চালিয়ে শহীদ জিয়ার সৈনিকদের দমিয়ে রাখা যাবেনা। গণতন্ত্রের মা আপোষহীন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার আন্দোলন বাধাগ্রস্থ করতে নিরীহ নেতাকর্মীদের উপর অবৈধ বাকশালী সরকার সীমাহিন জুলুম নিপীড়ন চালাচ্ছে। ষড়যন্ত্রমুলক মিথ্যা মামলা দিয়ে নেতাকর্মীদের গ্রেফতার ও তল­াশীর নামে বাসা-বাড়ীতে পুলিশী হামলা ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে। কোন ষড়যন্ত্রই জাতীয়তাবাদী শক্তির অগ্রযাত্রা রুখতে পারবেনা। গণতন্ত্রের মুক্তি না হওয়া পর্যন্ত সকল জুলুম উপেক্ষা করে দেশপ্রেমিক জনতার সংগ্রাম চলবেই।

তিনি গতকাল মঙ্গলবার ষড়যন্ত্রমুলক মিথ্যা মামলায় দীর্ঘদিন কারাবরণ শেষে মুক্তির পর সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারের ফটকের সামনে বালাগঞ্জ ও ওসমানীনগর উপজেলার বিএনপি অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠনের ১৬জন নেতাকর্মীকে দেয়া তাৎক্ষনিক সংবর্ধনায় উপরোক্ত কথা বলেন।

এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- জেলা বিএনপির উপজেলা ও বালাগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবদাল মিয়া, জেলা বিএনপির সহ সভাপতি কামরুল হুদা জায়গীরদার, সৈয়দ মুতাহের আলী, ফখরুল ইসলাম ফারুক, জেলা বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুর রব চৌধুরী ফয়সল, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো: ময়নুল হক, জেলা মুক্তিযোদ্ধা দলের সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক এডভোকেট আনোয়ার হোসেন, ওসমানীনগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ও দয়ামীর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান তাজ মোহাম্মদ ফখর, যুগ্ম সম্পাদক নজরুল ইসলাম, বালাগঞ্জ থানা বিএনপির সহ-সভাপতি মির্জা আবুল কাশেম জিতু, আব্দুর রশিদ, নজরুল ইসলাম জিতু, সাধারণ সম্পাদক এম মুজিবুর রহমান, বালাগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল মুমিন, যুগ্ম সম্পাদক শেখ আলাউদ্দিন রিপন, খলিলুর রহমান নানু, হাফিজ আব্দুল হাদী, সাংগঠনিক সম্পাদক ছালিক মিয়া, ফেঞ্চুগঞ্জ বিএনপি নেতা সঞ্জিত আলী, জেলা ছাত্রদলের যুগ্ম সম্পাদক মিজানুর রহমান নেছার, আহমদ জিলু, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক সোহেল ইবনে রাজা, মির্জা হাবিব, বালাগঞ্জ বিএনপি নেতা আজমল আলী মাসুক, মির্জা আব্দুল বাছিত, বাবরু মিয়া, এডভোকেট সাইফুল ইসলাম, যুবদল নেতা দুলাল হোসেন, রেজাউল ইসলাম, দেলওয়ার শিকদার, জিয়া চৌধুরী, উপজেলা ছাত্রদলের সভাপতি আজম হোসেন, শুভ লস্কর, আবুল হোসেন, সাধারণ সম্পাদক সায়েম আহমদ সুহেল, সাংগঠনিক সম্পাদক জেল শাবুল, ওয়েছ আহমদ বীর, রায়জুউল ইসলাম, খিজির আহমদ, নোমান লস্কর, মামুন আহমদ, সালেহ আহমদ, জিসান আহমদ, নুরুল ইসলাম, ময়নুল ইসলাম, শেখ আব্দুল মুকিত, বিলাল আহমদ, শাহীন মিয়া, শেখ খালেদ, শেখ শাকের, জাহিদ আহমদ, বিএনপি নেতা মকদ্দছ আলী, আইন উদ্দিন, শেখ উস্তার মিয়া, লেছু মিয়া, সুরফান আলী, কালা মিয়া।

কারামুক্তির পর জেল গেইটে সংবর্ধনা প্রাপ্তরা হলেন- বালাগঞ্জ উপজেলা বিএনপির যুব বিষয়ক সম্পাদক শেখ সোহেল আহমদ বকুল, পূর্ব গৌরীপুর ইউনিয়ন যুবদলের আহবায়ক মুহিবুর রহমান চৌধুরী, পূর্ব গৌরীপুর ইউনিয়ন ছাত্রদলের সাবেক আহবায়ক আব্দুস সালাম, পূর্ব গৗরীপুর ইউনিয়ন ছাত্রদলের সাবেক সিনিয়র সহ-সভাপতি আবুল আহমদ, বালাগঞ্জ উপজেলা ছাত্রদলের সদস্য ফয়ছল আহমদ শাফি, ছাত্রদল নেতা হাবিবুর রহমান, কনাই মিয়া, খয়ের মিয়া, শেখ জুনেদ মিয়া, হামিম মিয়া, নজরুল মিয়া, নাজমুল ইসলাম, সুমন আহমদ, মিজানুর রহমান, ফয়েজ আহমদ, মাসুম আহমদ ও শফিক আহমদ।
উলে­খ্য, গত ৫ ফেব্রুয়ারি সোমবার বিকেলে বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদ জিয়াকে স্বাগত জানানোর জন্য আসার পথে উপজেলার তাজপুর কদমতলা থেকে একটি বাস সহ তাদের আটক করা হয়।

মহাসড়কে গণজমায়েত ও সভা-সমাবেশের উপর নিষেধাজ্ঞা থাকার পরও বালাগঞ্জ থেকে বাস যোগে নাশকতা ঘটাতে ওসমানীনগরে প্রবেশ করছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ বিএনপি ও এর অঙ্গ সংগঠনের ১৬জন নেতা-কর্মী সহ বাসটি আটক করে।

কমেন্ট
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •