বঙ্গমাতা সেতুর উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

নিউজ ডেস্ক:: পিরোজপুরের কচা নদীর ওপর নির্মিত বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব অষ্টম বাংলাদেশ চীন-মৈত্রী সেতুর উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এর মধ্য দিয়ে দক্ষিণাঞ্চলের উন্নয়নের আরেকটি দুয়ার খুলল। পূরণ হলো দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের কোটি কোটি মানুষের আরও একটি স্বপ্ন।

রোববার সকালে গণভবন থেকে ভার্চ্যুয়ালি যুক্ত হয়ে বঙ্গমাতা সেতুর উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী। এ সেতু উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে বরিশালের সঙ্গে খুলনা বিভাগের নিরবচ্ছিন্ন সড়ক যোগাযোগের দুয়ার খুলে গেল।

সেতুটি উদ্বোধনে দক্ষিণাঞ্চলের সঙ্গে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের সড়ক যোগাযোগের এক নবদিগন্ত উন্মোচিত হলো। এ অঞ্চলের মানুষের দীর্ঘদিনের স্বপ্ন পূরণ হওয়ায় সেতুটি ঘিরে কচা নদীর দুই তীরের মানুষ উচ্ছ্বাসে ভাসছে। সেতু উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে সাধারণ মানুষের ভোগান্তির পরিসমাপ্তি ঘটবে। বাঁচবে ফেরি পারাপারের সময়।

সেতুর প্রকল্প ব্যবস্থাপক প্রকৌশলী মাসুদ মাহামুদ বলেন, পিরোজপুর সদর ও কাউখালী উপজেলার মধ্যবর্তী কচা নদী দিয়ে বরিশাল-খুলনা আঞ্চলিক মহাসড়কটি বিচ্ছিন্ন ছিল। ফেরি পার হতে ৩০ মিনিট লেগে যেত। নদীর স্রোত তীব্র আকার ধারণ করলে সময় আরও বেশি লাগত।

সড়ক ও জনপথ বিভাগ সূত্রে জানা যায়, ২০১৮ সালের ১ নভেম্বর প্রধানমন্ত্রী সেতু নির্মাণকাজের উদ্বোধন করেন। একই বছরের ১৮ জুলাই সেতুর কাজ শুরু করে চায়না রেলওয়ে ১৭ ব্যুরো গ্রুপ লিমিটেড নামের একটি প্রতিষ্ঠান। ৯৯৮ মিটার দৈর্ঘ্য ও ১৩ দশমিক ৪০ মিটার প্রস্থের সেতুটির ১০টি পিয়ার ও ৯টি স্প্যান আছে। ৮৯৮ কোটি টাকা ব্যয়ে সেতুটি নির্মাণ করা হয়েছে।

উদ্বোধন অনুষ্ঠানে পিরোজপুর প্রান্তে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী অ্যাডভোকেট শ. ম. রেজাউল করিম এমপি, জেলা প্রশাসক মো. জাহেদুর রহমান, জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ সাঈদুর রহমান, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা এ কে এম এ আউয়াল, পিরোজপুর পৌর মেয়র হাবিবুর রহমান মালেকসহ বিভিন্ন দপ্তরের প্রধান উপস্থিত রয়েছেন।

এদিকে সেতুর কাউখালী প্রান্তে পিরোজপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ার হোসেন মঞ্জুসহ বিভিন্ন উপজেলা নির্বাহী অফিসার, সরকারি কর্মচারী-কর্মকর্তা, বিভিন্ন দপ্তর প্রধান ও বিভিন্ন স্তরের সাধারণ মানুষ উপস্থিত রয়েছেন।

কমেন্ট

Leave a Reply

Your email address will not be published.