বন্যায় সরকার উদ্ধার কর্মকান্ড ও ত্রাণ বিতরণে সম্পূর্ণ ব্যার্থ : কাইয়ুম চৌধুরী

সিলেট জেলা বিএনপি সভাপতি আব্দুল কাইয়ুম চৌধুরী বলেছেন, মাত্র ১ মাসের মধ্যেই দ্বিতীয় দফায় ভয়াবহ বন্যায় প্লাবিত হলো সিলেট অঞ্চল। এই বন্যার শুরু থেকেই বানবাসী মানুষদের উদ্ধার করতে এবং ত্রাণ সহায়তা নিতে সম্পূর্ণরুপে ব্যার্থ হয়েছে। আমরা আজ সদর দক্ষিণ উপজেলার বিভিন্না এলাকায় ঘুরেছি, এসব এসব এলাকায় সরকারের উদ্ধার তৎপরতা ও ত্রাণ বিতরণ চোখে পড়েনি। বরং বন্যাদুর্গত এলাকার সাধারণ মানুষ ও বিএনপি নেতাকর্মীরা নিজ উদ্যেগ পানিবন্দি মানুষদের উদ্ধার করছে এবং সামর্থ অনুযায়ী পাশে দাঁড়ানোর চেষ্ঠা করছে।
রবিবার সিলেট সদর দক্ষিন উপজেলার তেতলী , কামালবাজার , সিলাম ইউপির বিভিন্ন আশ্রয়কেন্দ্রে প্রায় তিন হাজার মানুষের মাঝে খাবার বিতরন কালে তিনি এসব কথা বলেন।
তিনি আরো বলেন, বিগত ১৯৯৩ ও ২০০৪ সালের ভয়াবহ বন্যায় বিএনপি নেতার্মীরা যেভাবে গণমানুষের পাশে ছিলেন এবারও সেভাবে রয়েছেন। ১৯৯৩ সালের বন্যার সময় তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া সিলেটে বানবাসী মানুষকে দেখতে এসেছিলেন। আর বর্তমান অবৈধ প্রধানমন্ত্রী গণভবন থেকে সর্বশেষ কবে বের হয়েছেন দেশবাসীর তা মনে নেই। বরং দেশের উত্তরপূর্বাঞ্চল যখন বন্যায় প্লাবিত তখন শতকোটি টাকা খরশ করে পদ্মা সেতুর উদ্বোধন অবুষ্ঠানের নামে জনগনের সাথে তামাশা করা হচ্ছে। এর হিসাব একদিন দিতে হবে।
সিলেট জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাক এ্যাডভোকেট এমরান আহমদ চৌধুরী বলেন, আওয়ামীলীগ সরকার বরাবরই কাজের চেয়ে ঢোল পেঠায় বেশী, আর তাদের এই ঢোল পেঠানোতে ক্ষতিগ্রস্ত হয় সাধারণ জনগন। তারা যতসামান্য উদ্ধার তৎপরতা ও ত্রাণবিতরণের নামে প্রহসন করে বলছে পর্যাপ্ত ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। এর ফলে স্বেচ্ছাসেবী ও ব্যক্তি উদ্যোগ পিছিয়ে যেতে পারে। আর এমনটি হলে মানুষের দুর্ভোগের সীমা থাকবেনা।  বন্যার শুরু থেকেই বিএনপি ও অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা যেভাবে বানবাসি মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন তা অনুকরণীয়। এই ধারা অব্যাহত থাকবে ইনশাআল্লাহ।
এসময়  উপস্থিত ছিলেন- ছিলেন জেলা বিএনপির  সাধারন সম্পাদক এ্যাডভোকেট এমরান আহমদ চৌধুরী, সদর দক্ষিন উপজেলা বিএনপির সাধারন সম্পাদক কোহিনূর আহমদ, অলিউর রহমান চেয়ারম্যান, জেলা বিএনপি নেতা মাহবুব আলম, সেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ন আহবায়ক নাজিম উদ্দিন পান্না, জেলা বিএনপি নেতা মনিরুল ইসলাম তোরন, হাজী পাবেল, মহানগর ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক ফজলে হাসান রাব্বী, জেলা জাসাসের সদস্য সচিব রায়হান এইচ খান, যুবদল নেতা রাসেল হোসেন, মোঃ আব্বাস ,ছাত্রদল নেতা আজমল হোসেন অপু প্রমুখ ।
কমেন্ট

Leave a Reply

Your email address will not be published.