হাওর রক্ষা বাঁধে অনিয়ম সহ্য করা হবে না:জেলা প্রশাসক মো.জাহাঙ্গীর হোসেন

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি :: সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার ৯ ও শান্তিগঞ্জ উপজেলার ৮টিসহ মোট ১৭ ইউনিয়ন পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যানদের শপথ গ্রহণ করা হয়েছে।

মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১ টায় জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে এই শপথগ্রহণ অনুষ্ঠান হয়। শপথ বাক্য পাঠ করান জেলা প্রশাসক মো. জাহাঙ্গীর হোসেন।

শপথ অনুষ্ঠানে চেয়ারম্যানদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন শান্তিগঞ্জ উপজেলার পশ্চিম পাগলা ইউনিয়ন পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান মো. জগলুল হায়দার, দরগাপাশা ইউনিয়ন পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান মো. সুফি মিয়া, পূর্ব পাগলা ইউনিয়ন পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান মো.মাসুক মিয়া, জয়কলস ইউনিয়ন পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান মো. আব্দুল বাছিত সুজন, পশ্চিম বীরগাঁও ইউনিয়ন পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান মো. লুৎফুর রহমান জায়গীরদার খোকন, পূর্ব বীরগাঁও ইউনিয়ন পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান রিয়াজুল ইসলাম, পাথারিয়া ইউনিয়ন পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান মো. শহীদুল ইসলাম, শিমুলবাঁক ইউনিয়ন পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান শাহীনুর রহমান শাহিন।

অপরদিকে সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার লক্ষণশ্রী ইউনিয়ন পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান মো. আব্দুল ওয়াদুদ, কুরবান নগর ইউনিয়ন পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান মো. আবুল বরকত, সুরমা ইউনিয়ন পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান মো. আমির হোসেন রেজা, জাহাঙ্গীরনগর ইউনিয়ন পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান মো. রশিদ আহমেদ, রঙ্গারচর ইউনিয়ন পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান মো. আব্দুল হাই, মোহনপুর ইউনিয়ন পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান মাইনুল হোসেন, মোল্লাপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান মো. নুরুল হক, কাঠইর ইউনিয়ন পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান মুফতি সামছুল ইসলাম ও গৌরারং ইউনিয়ন পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান মো. শওকত হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক মোহাম্মদ জাকির হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক মো. জাহাঙ্গীর হোসেন নবনির্বাচিত চেয়ারম্যানদের উদ্দেশ্যে বলেন, কে আপনাদের ভোট দিয়েছেন কিংবা দেন নি সেই দৃষ্টিকোণ থেকে বিচার না করে আপনি একটি ইউনিয়ন পরিষদের জনপ্রতিনিধি হিসেবে সকল জনগণের প্রতি সমানভাবে তাদের মৌলিক সেবা প্রদান করবেন। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনা দেশে কোন মানুষ গৃহহীন থাকবে না, তাই প্রতিটি ইউনিয়ন আর ওয়ার্ডের কোন মানুষ যেন গৃহহীন না থাকে সেইদিকে খেয়াল রেখে তাদের গৃহ নির্মাণ করে দিতে হবে।
তিনি আরো বলেন, হাওরের এই জেলার মানুষ বোরো ফসলের উপর নির্ভরশীল, প্রতিটি হাওরে সময়মতো ও সঠিকভাবে ফসলরক্ষা বাধঁ নির্মাণে এখন থেকে মনোযোগী হতে হবে। কেউ বাঁধ নির্মাণে অনিয়ম আর দুর্নীতির সাথে জড়িত হলে ছাড় দেয়া হবে না।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন শান্তিগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আনোয়ার উজ জামান, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. ইমরান শাহরিয়ার ও জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. সম্রাট হোসেন। শুরুতেই নবনির্বাচিত ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানদের ফুল দিয়ে বরণ করেন প্রশাসনের কর্মকর্তাবৃন্দ।
কমেন্ট

Leave a Reply

Your email address will not be published.