হত্যার পর মাটিতে পুঁতে রাখা লাশ উদ্ধার: আটক ৫

1 total views, 1 views today

সিলেট নিউজ টাইমস্ ডেস্ক
মৌলভীবাজারের কুলাউড়ার কর্মধা ইউনিয়নে ৪ দিন যাবৎ নিখোঁজ থাকার পর ইসমত আলী (২৫) নামে এক যুবকের লাশ মাটির নিচ থেকে উদ্ধার করেছে পুলিশ ও স্থানীয়রা। এঘটনায় পুলিশ তিন মহিলাসহ ৫জনকে আটক করেছে।

আটককৃতরা হলেন ডাইব্বার স্ত্রী প্রনলা (৪০), সামির মানকিনের স্ত্রী আশা হাকিডক (২২), জাহিদের স্ত্রী রিয়া রিচিল (২২), প্লরেনের ছেলে সনি পলেন ওরফে জুয়েল (২৫), পলমান্ডার ছেলে সজিব (২৭)।

এ ঘটনায় বুধবার (১৬ অক্টোবর) নিহতের আপন ছোট ভাই মোহাম্মদ আব্দুস সামাদ বাদি হয়ে কুলাউড়া থানায় ১৭ জনের নামোল্লেখ করে একটি হত্যা মামলা (নং-১০) করেন। নিহত ইসমত উপজেলার পৃথিমপাশা ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ও ঘড়গাঁও গ্রামের বাসিন্দা মৃত ইছহাক আলীর ছেলে।

মামলার অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, নিহত ইসমত আলীর সাথে আসকরাবাদ গ্রামের ফেরদৌস আহমদ ও লম্বাছড়া খাসিয়া পুঞ্জির খাসিদের সাথে জমি সংক্রান্ত বিরোধ চলছিলো। ফেরদৌস পার্শ্ববর্তি লম্বছড়া পান পুঞ্জিতে পাহাড়াদার হিসেবে চাকরি করতো। এরই এক পর্যায়ে গত ১১ অক্টোবর রাত ৯টার দিকে নিহত ইসমত আলী লম্বাছড়া পুঞ্জির প্রনলার বাড়িতে যায়। ওই সময় আগে থেকে ওঁৎপেতে থাকে আশা হাকিডক, রিয়া রিচিল, জুয়েল ওরফে সনি পলেন, জরিনা, রুপিয়া, নির্মলাসহ কয়েকজন লাঠিসোটা দিয়ে বেধড়ক মারতে শুরু করলে এক পর্যায়ে ইসমত মারা যায়। পরে প্রনলার ঘরের লাকড়ির উপর ইসমতকে বেধে পার্শ্ববর্তি পুটিছড়া পুঞ্জির ছড়ার পাশে মাটির নিচে পুঁতে রেখে দেয়। এদিকে পাহারাদার ফেরদৌস তার স্ত্রীকে নিয়ে ১৪ অক্টোবর কুলাউড়া থানায় ইসমতকে পাওয়া যাচ্ছে না মর্মে সাধারণ ডায়রী দায়ের করে। জিডির তদন্ত করতে এসআই রহিমের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে সজিবকে সন্দেহবশত আটক করা হয়। পরে তার দেয়া তথ্যমতে প্রনলা, আশা, রিয়াকে আটক করলে তারা স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়। তাদের দেয়া তথ্যমতে পুটিছড়া পুঞ্জির ছড়ার পাশে থেকে স্থানীয়দের সহযোগীতায় ইসমতের লাশ মাটিচাপা অবস্থা থেকে উদ্ধার করা হয়।

ঘটনাস্থল থেকে এসআই রহিম গতকাল রাতে জানান, প্রায় এক কিলোমিটার গহীন জঙ্গলে লাশটি পুঁতে রাখা হয়। আমরা স্থানীয়দের সহযোগীতায় এবং ঘটনাকারী দুইজনকে নিয়ে রাত ৩টার দিকে লাশটি উদ্ধার করি।

এবিষয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (কুলাউড়া সার্কেল) কাওসার দস্তগীর বলেন, এঘটনায় ৫ জনকে আটক করে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। বাকিদের আটকের চেষ্টা অব্যাহত আছে।

কমেন্ট

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.