সিলেটে ভোটের দিন থাকবে ৪ স্তরের নিরাপত্তা

106 total views, 1 views today

নিউজ ডেস্ক:: একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে সিলেটে কঠোর নিরাপত্তাব্যবস্থা গ্রহণ করেছে আইনশৃখংলা রক্ষাকারী বাহিনী। র‌্যাব, বিজিবি, সেনাবাহিনী ও পুলিশের বিভিন্ন সংস্থা নগরের গুরুত্বপূর্ণ মোড়ে যানবাহনে তল্লাশি শুরু করেছে। পাশাপাশি ভ্রাম্যমাণ আদালত নিয়মিত টহল দিচ্ছে।

এদিকে কঠোর নিরাপত্তায় বিভিন্ন উপজেলায় ভোটের সরঞ্জাম পাঠানো হয়েছে। শনিবার ভোট কেন্দ্রে এগুলো পাঠানো হবে বলে জানিয়েছেন জেলা রিটার্নিং অফিসার ও জেলা প্রশাসক কাজী এমদাদুল ইসলাম।

এছাড়া সিলেট জেলায় ৪ স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থার কথা জানিয়েছেন সিলেট জেলা পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার শামসুল ইসলাম সরদার।

তিনি জানান, প্রতিটি কেন্দ্রে পুলিশ মোতায়েন ছাড়াও প্রতিটি ইউনিয়নে একটি করে মোবাইল পেট্রল থাকবে এবং প্রতিটি থানায় একটি স্ট্রাইকিং ফোর্স রিজার্ভ থাকবে। এছাড়া জেলা পর্যায়ে ২টি বিশেষ স্ট্রাইকিং ফোর্স এবং প্রতিটি কেন্দ্রে সাদা পোশাকে পুলিশি নিরাপত্তা থাকবে।

শুক্রবার দুপুর থেকে নগরের প্রবেশ পথসহ মোড়ে মোড়ে বসানো হয়েছে অস্থায়ী চেকপোস্ট। বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে ভ্রাম্যমাণ চেকপোস্ট বসিয়ে যানবাহন, লাগেজ ও ব্যক্তি বিশেষের দেহ তল্লাশি করে যাচ্ছে র‌্যাব-পুলিশ, বিজিবি ও গোয়েন্দা পুলিশের সদস্যরা। পাশাপাশি সেনাবাহিনীও স্ট্রাকিং ফোর্স হিসেবে টহল দিচ্ছে।

নির্বাচন উপলক্ষে সিলেটে মহানগরসহ পুরো সিলেটে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষা, জনস্বার্থ, জনশৃঙ্খলা ও সাধারণ জনগণের চলাচল নির্বিঘ্ন করতে যান চলাচলে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছেন।

২৯ ডিসেম্বর দিবাগত মধ্যরাত থেকে ৩০ ডিসেম্বর মধ্যরাত ১২টা পর্যন্ত স্থানীয় যন্ত্রচালিত সব ধরনের যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকবে। এছাড়া শুক্রবার মধ্যরাত থেকে ১ জানুয়ারি মধ্যরাত পর্যন্ত মোটরসাইকেল চলাচলের উপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে।

র‌্যাব-৯ এর মিডিয়া অফিসার অতিরিক্ত এসপি মনিরুজ্জামান জানান, শান্তিপূর্ণ পরিবেশে নির্বাচন আয়োজনের লক্ষ্যে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে।

সিলেট মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (গণমাধ্যম) জেদান আল-মুসা জানান, প্রতিটি কেন্দ্রের বাইরে এক বা একাধিক গুরুত্বপূর্ণ ওয়ার্ডে মোবাইল পেট্রল টিমের পাশাপাশি ৪/৫টি ওয়ার্ডে একটি করে স্ট্রাইকিং ফোর্স থাকবে।

তিনি জানান, এর বাইরেও সদরদফতরে রিজার্ভ স্ট্রাইকিং ফোর্স প্রস্তুত থাকবে এবং প্রতিটি কেন্দ্রে সাদা পোশাকে নজরদারি করবে পুলিশ। পাশাপাশি মহানগর পুলিশের আওতাধীন ২৯৩টি কেন্দ্রের মধ্যে ২০২টি গুরুত্বপূর্ণ কেন্দ্রেও বিশেষ নজরদারি রাখা হবে।

কমেন্ট

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.