হিলোয়াছড়া চা-বাগানে ৮ বছরে এক শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ

62 total views, 2 views today

নিজস্ব প্রতিবেদক :: সিলেট সদর উপজেলার হিলোয়াছড়া চা বাগানে ৮ বছর বয়সের এক শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত ২৭ অক্টোবর শনিবার বেলা ১১টায় এ ঘটনাটি ঘটেছে বলে দাবি করেছেন শিশুর বাবা-মা।

এ ঘটনায় ওই শিশুর পিতার দায়ের করা মামলায় অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। পরে তাকে আদালতে নিয়ে গেলে আদালত তাকে কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দিয়েছেন। সে বর্তমানে কারাগারে রয়েছে।

শিশু কন্যার পিতা বসন্ত কালীন্দি হিলোয়াছড়া চা-বাগানের বাসিন্দা খুদিরাম বাউড়ির ছেলে ধর্ষক মাতাল বাউড়িকে আসামী করে এয়ারপোর্ট থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন। মামলা নং- (৩০(১০)১৮)। ওই মামলায় পুলিশ সোমবার রাতে মাতাল বাউড়ীকে গ্রেফতার করে।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, বসন্ত কালীন্দি ও মাতা অনি কালীন্দি প্রতি দিনের ন্যায় ৮ বছর বয়সী শিশু কন্যাকে ঘরে রেখে চা-পাতা উত্তেলনে চা বাগানে চলে যান। এই সুযোগে ধর্ষক মাতাল বাউড়ি প্রলোভন দেখিয়ে তার বসত ঘরে নিয়ে দরজা বন্ধ করে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। ধর্ষণ শেষে শিশুটিকে ঘরে রেখে তালাবদ্ধ করে পালিয়ে যায়। বেলা ১টার দিকে প্রতিবেশি মেঘলা বাউড়ি ধর্ষিতার কান্নার শব্দ শুনতে পেয়ে বাদীর বড় মেয়ে আধরী কালীন্দিকে খবর দেয়। খবর পেয়ে আধরী কালীন্দি প্রতিবেশিদের নিয়ে দরজার তালা ভঙ্গে ধর্ষিত শিশুকে উদ্ধার করে।

পরে ধর্ষিতা পিতা ও মাতা বাড়িতে এসে মেয়েকে চিকিৎসার জন্য সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওসিসি ওয়ার্ডের ৬নং বেডে ভর্তি করেন।

স্থানীয় লোকজনদের পরামর্শে ধর্ষিতার পিতা বাদী হয়ে মাতাল বাউড়িকে গ্রেফতার করে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণে জন্য এয়ারপোর্ট থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। এয়ারপোর্ট থানা অভিযোগটি গ্রহণ করে নারী ও শিশু নির্যতান দমন আইন সংশোধনী ২০০৩ ধারায় মামলা হিসেবে গ্রহণ করে।

এ বিষয়ে বসন্ত কালীন্দি বলেন, পুলিশ আসামীকে গ্রেফতার করেছে। আমরা এর সুষ্ঠু বিচার চাই।

এয়ারপোর্ট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এস এম শাহাদাত হোসেন বলেন, আমরা ধর্ষণের অভিযোগে দায়েরকৃত মামলায় আসামীকে গ্রেফতার করেছি। এখন পরবর্তি আইনানুগ কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে। শিশুটি বর্তমানে তার বাবার হেফাজতে আছে। তাকে মেডিকেল থেকে চা-বাগানে বাড়িতে নেয়া হয়েছে।

কমেন্ট
শেয়ার করুন
  • 1
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    1
    Share