“শ্বশুর বাড়িতে জামাইকে গলাকেটে হত্যা: ৩ জন আটক”লাশ উদ্ধার

38 total views, 1 views today

নিজস্ব প্রতিনিধি :: শ্বশুর বাড়ি থেকে নিখোঁজের ৫দিন পর কাউছার আহমেদ (২৮) নামে এক জামাতার গলাকাটা লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শনিবার বিকাল ৩ টার দিকে সদর উপজেলার রুয়াইল হাওর থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়। সে শহরতলীর উমেদনগর গ্রামের মৃত আকল মিয়ার ছেলে। পরে মরদেহটি ময়না তদন্তের জন্য হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করা হয়।

এ ঘটনায় কাউছারের শ্বশুর ও স্ত্রীসহ ৩ জনকে আটক করেছে পুলিশ।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, নিহত কাউছার সদর উপজেলার টঙ্গিরঘাট গ্রামের মকছুদ আলীর কন্যাকে প্রায় ৫ বছর পূর্বে বিয়ে করে। বিয়ের পর তাদের দাম্পত্য জীবনে দুটি সন্তান জন্ম গ্রহন করেন। এরপর পারিবারিক কলহের জেল ধরে স্ত্রী বাপের বাড়িতে আটকে যায়। গত সোমবার কাউছার সদর উপজেলার টঙ্গিরঘাট গ্রামে তার শ্বশুর মকছুদ আলীর বাড়িতে স্ত্রীকে আনার জন্য যায়। এর পর থেকেই সে নিঁখোজ ছিল। পরে এ ঘটনায় কাউছারের পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় একটি জিডি করা হলে পুলিশ বিষয়টি নিয়ে তদন্তে নামে। এক পর্যায়ে শনিবার সকালে কাউছারের স্ত্রী সুখবানুকে সন্দেহভাজন হিসেবে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে সে জানায় তার স্বামী ঝগড়া করে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে পরে তাকে জবাই করে হত্যা করে লাশ হাওরে রেখে দেয়। এ ঘটনার পর পুলিশ তার শ্বশুরকে নোয়াগাও এলাকা থেকে গ্রেফতার করে নিয়ে আসে। পরে তাদের দেয়া তথ্য অনুযায়ী পুলিশ টঙ্গিরঘাটের পাশ্ববর্তী রোয়াইল হাওর থেকে লাশ উদ্ধার করে নিয়ে আসে।

হবিগঞ্জ সদর মডেল থানার (ওসি) তদন্ত জিয়াউর রহমান সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, জিজ্ঞাসাবাদের জন্য কাউছারের শ্বশুর, স্ত্রী ও শ্বাশুড়ি খাইরুন্নেছাকে আটক করা হয়েছে। এ বিষয়ে পুলিশ তদন্ত চালিয়ে যাচ্ছে।

কমেন্ট
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •