হবিগঞ্জে সদর হাসপাতালে ইন্টার্নি দুই শিক্ষার্থী শচীন্দ্র কলেজের জীবিত ছাত্রীকে মৃত ঘোষণা!

58 total views, 2 views today

নিজস্ব প্রতিনিধি :: হবিগঞ্জে আধুনিক জেলা সদর হাসপাতালে রিনা আক্তার নামে জীবিত এক কলেজছাত্রীকে মৃত ঘোষণা নিয়ে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। রিনা বানিয়াচং উপজেলার জিটকা গ্রামের ফজর উদ্দিনের কন্যা। তিনি শচীন্দ্র কলেজে দ্বাদশ শ্রেণিতে অধ্যয়নরত।

গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য সিলেটে নিয়ে যাওয়া হয়।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গত সোমবার সকালে মাথা ব্যথায় অচেতন হয়ে পড়লে রিনাকে হবিগঞ্জ আধুনিক জেলা সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে আসেন তার অভিভাবকরা। এসময় সেখানে ইন্টার্নি দুই শিক্ষার্থী রোগীর পালস পরীক্ষা করে একে অপরকে রোগী মারা গেছে বলেন। এ কথা শুনে ওই রোগীর পরিবারের লোকজন কান্নায় ভেঙে পড়েন। বাড়িতে খবর পৌঁছলে রিনার ভাই সাজু মিয়া হাসপাতালে এসে বোনের মুখের কাছে হাত নিলে গরম নিঃশ্বাস অনুভব করেন। তখন তিনি ডাক্তারকে গালাগাল দিয়ে চিৎকার শুরু করেন। এসময় খবর পেয়ে জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. মিঠুন রায় রোগীকে পরীক্ষা করে স্যালাইনসহ ওষুধ দেন এবং হাসপাতালে ভর্তি করেন।

সোমবার দুপুর ২টার দিকে রিনা আক্তার আবারও অচেতন হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে সিলেটে রেফার করেন। মঙ্গলবার বিকেলে তাকে সিলেট পাঠানো হয়।

এ ব্যাপারে রোগীর বাবা ফজর উদ্দিন বলেন, ডাক্তারকে না জানিয়ে ট্রেনিং করতে আসা শিক্ষার্থীরা এভাবে ঘোষণা দেওয়া ঠিক হয়নি। এ ঘটনায় তারা মানসিকভাবে ভেঙে পড়েছিলেন।

হবিগঞ্জ আধুনিক সদর হাসপাতালের চিকিৎসক ডা. মিঠুন রায় বলেন, যারা ইন্টার্নি শিক্ষার্থী তারা অনেক সময় ডাক্তারকে খবর দেওয়ার আগেই নিজেরা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করেন। এখানে এ ধরনেরই কোনো ভুল বোঝাবুঝি হয়েছে।

কমেন্ট
শেয়ার করুন
  • 18
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    18
    Shares