সিলেট নিউজ টাইমস্ | Sylhet News Times

অজু ছাড়া কি কুরআন স্পর্শ করা যায়?

220 total views, 1 views today

ধর্মকর্ম ডেস্ক:: কুরআন তেলাওয়াতের আগে অজু করে নেয়া এবং নিজেকে পরিপূর্ণভাবে পবিত্র করে নেয়া এটি প্রচলিত নিয়ম। কেননা কুরআন হচ্ছে মহান আল্লাহপাকের কালাম। আল্লাহপাক পবিত্র, তার কালামও পবিত্র। তাছাড়া আল্লাহপাক পবিত্রতাকে পছন্দ করেন। সুতরাং আমাদের সবারই উচিত হবে আল্লাহর কালাম পবিত্র কুরআন তেলাওয়াতের পূর্বে অজু করে নেয়া। এই বিষয়ে আল্লাহপাক পবিত্র কুরআনে ইরশাদ করেছেন, একখানা সুরক্ষিত গ্রন্থে লিপিবদ্ধ। পবিত্র সত্তাগণ ছাড়া আর কেউ তা স্পর্শ করতে পারে না। (ওয়াকিয়া:৭৭-৭৯)

এই আয়াতের ব্যাখ্যায় এসেছে যে, পবিত্র সত্তা ছাড়া কেউ তা স্পর্শ করতে পারে না। অর্থাৎ শয়তান কর্তৃক এ বাণী নিয়ে আসা কিংবা নাজিল হওয়ার সময় এতে কর্তৃত্ব খাটানো বা হস্তক্ষেপ করা তো দূরের কথা যে সময় লওহে মাহফূজ থেকে তা নবীর (সা.) উপর নাজিল করা হয় সে সময় পবিত্র সত্তাসমূহ অর্থাৎ পবিত্র ফেরেশতারা ছাড়া কেউ তার ধারে কাছেও ঘেঁষতে পারে না। ফেরেশতাদের জন্য পবিত্র কথাটি ব্যবহার করার তাৎপর্য হলো মহান আল্লাহ তাদেরকে সব রকমের অপবিত্র আবেগ অনুভূতি এবং ইচ্ছা আকাঙ্খা থেকে পবিত্র রেখেছেন।

পবিত্রতা অর্জন করা ছাড়া কেউ যেন কুরআন স্পর্শ করে না। (তফসীর ইবনে কাসীর )

পবিত্র কুরআনে মাহন আল্লাহপাক আরও ইরশাদ করেছেন, এই বইয়ে এমন সব লিখিত আছে, যা সম্মানিত। উন্নত মর্যাদা সম্পন্ন ও পবিত্র। এটি মর্যাদাবান। (আবাসা:১৩-১৫), এই আয়াত থেকে অনুমান করা যায় যে, কুরআন স্পর্শ করার আগে অবশ্যই অযু করে পবিত্র হতে হবে।

হজরত সালমান ফারসী (রা.) অজু ছাড়া কুরআন পড়া দুষণীয় মনে করতেন না। তবে তার মতে এরূপ ক্ষেত্রে হাত দিয়ে কুরআন স্পর্শ করা জায়েজ নয়। হজরত সাদ (রা.) ইবনে আবী ওয়াককাস এবং হজরত আব্দুল্লাহ ইবনে উমর (রা.) ও এমত অনুসরণ করতেন। হজরত হাসান বাসরী ও ইবরাহীম নাখয়ী ও বিনা ওযুতে কুরআন শরীফ স্পর্শ করা মাকরূহ মনে করতেন। (আহকামুল কুরআন-জাসসাস)। আতা, তাউস, শাবী এবং কাসেম ইবনে মুহাম্মাদও এই মত পোষন করতেন বলে বর্ণিত হয়েছে (আল -মুগনী-ইবনে কুদামাহ)। তবে তাদের সবার মতে অজু ছাড়া কুরআন শরীফ স্পর্শ না করে পড়া কিংবা মুখস্ত পড়া জায়েজ।

তবে চিঠিপত্র কিংবা ফিকাহর কোন গ্রন্থ বা অন্যকিছু লিখিত বিষয়ের মধ্যে যদি কুরআনের কোন আয়াত থাকে তাহলে তা হাত দিয়ে স্পর্শ করা নিধেষ নয়। অনুরূপভাবে যদি কোন জিনিসের মধ্যে সংরক্ষিত থাকে তাহলে অজু ছাড়াই তা হাত দিয়ে ধরে উঠানো যায়। তাফসীর গ্রন্থসমূহ হাত দিয়ে ধরার ক্ষেত্রে অজু শর্ত নয়। তাছাড়া তাৎক্ষণিক প্রয়োজনে অজু ছাড়া কোন লোককে যদি হাত দিয়ে কুরআন স্পর্শ করতে হয় তাহলে সে তায়াম্মুম করে নিতে পারে।

কমেন্ট
শেয়ার করুন