সিসিকের মেয়র প্রার্থীরা ‘স্বশিক্ষিত’,‘কমিশন এজেন্ট’ ভূসিমালের দোকানদার এবং…

78 total views, 1 views today

নিউজ ডেস্ক:: সিসিকের মেয়র প্রার্থীরা ‘স্বশিক্ষিত’,‘কমিশন এজেন্ট’ ভূসিমালের দোকানদার, ফলব্যবসায়ী, মাইকিংকারী এবং আইনজীবিসহ বিচিত্র গুনের অধিকারী।

সিলেট সিটি করপোরেশনের নির্বাচনে মেয়র পদে মনোনয়নপত্র জমা ৯ প্রার্থীর মধ্যে ৩ জনই হলফনামায় নিজেদের স্বশিক্ষিত বলে দাবি করেছেন। যার মধ্যে সদ্য বিদায়ী মেয়র ও আসন্ন নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থী আরিফুল হক চৌধুরীও রয়েছেন। বাকী ছয় প্রার্থীর মধ্যে দু’জন এইচএসসি, একজন দাখিল, একজন স্নাতক, একজন এলএলবি ও একজন ডিএমএফ ডিগ্রীধারী বলে হলফনামা সূত্রে জানা গেছে।

মেয়র পদে প্রার্থী হওয়া ৫ জনেরই পেশা ব্যবসা। এছাড়া চিকিৎসক, আইনজীবী থেকে শুরু করে ‘মাইকিং পেশায় নিয়োজিত’ ব্যক্তিও প্রার্থী হয়েছেন।

সিলেট সিলেট করপোরেশনের মেয়র প্রার্থীদের নির্বাচন কমিশনে জমা দেওয়া হলফনামা থেকে এসব তথ্য জানা গেছে। গত ২৭ ও ২৮ জুন মনোনয়নপত্রের সাথে এই হলফনামা জমা দেন বলে জানান সিলেট সিটি করপোরেশনের নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা আলীমুজ্জামান।

সিলেট সিটি নির্বাচনে মনোনয়ন জমা দেওয়া মেয়র প্রার্থীরা হলেন- আওয়ামী লীগের প্রার্থী বদরউদ্দিন আহমদ কামরান, বিএনপির প্রার্থী আরিফুল হক চৌধুরী, ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলনের ডা. মোয়াজ্জেম হোসেন খান, সিপিবি-বাসদের আবু জাফর, স্বতন্ত্র প্রার্থী বিএনপির সিলেট মহানগর সাধারণ সম্পাদক বদরুজ্জামান সেলিম, জামায়াতের সিলেট মহানগর আমির এহসানুল মাহবুব জুবায়ের, এহসানুল হক তাহের, কাজী জসিম উদ্দিন ও মোক্তাদির আহমদ তাপাদার।

বিএনপির প্রার্থী ও সাবেক মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী হলফনামায় নিজের শিক্ষাগত যোগ্যতা ‘স্বশিক্ষিত’ বলে উল্লেখ করেছেন। একইভাবে সিপিবি-বাসদের প্রার্থী আবু জাফর এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী কাজী জসিম উদ্দিনও নিজেদের শিক্ষাগত যোগ্যতা ‘স্বশিক্ষিত’ বলে উল্লেখ করেছেন।

হলফনামা পেশা হিসেবে আরিফুল হক নিজেকে ব্যবসায়ী হিসেবে উল্লেখ করেছেন, আবু জাফর লিখেছেন ‘আমি বাসদের সার্বক্ষণিক রাজনৈতিক কর্মী, কোনো পেশার সাথে যুক্ত নই’, আর কাজী জসিম উদ্দিন পেশা হিসেবে লিখেছেন- ‘যমুনা মাইক এন্ড সিস্টেম-এর মাইকিংয়ের কাজে নিয়োজিত’। জসিম উদ্দিন নগরীতে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও পণ্যের প্রচারণামূলক মাইকিং করে থাকেন বলে জানা গেছে।

হলফনামায় আওয়ামী লীগের প্রার্থী ও আরেক সাবেক মেয়র বদরউদ্দিন আহমদ কামরান নিজের শিক্ষাগত যোগ্যতা এইচএসসি উল্লেখ করেছেন। আর নিজের পেশা হিসেবে উল্লেখ করেছেন ‘বালু পাথর ব্যবসায়ী ও কমিশন এজেন্ট’।

বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী বদরুজ্জামান সেলিমের শিক্ষাগত যোগ্যতা স্নাতক (পাস), পেশায় ব্যবসায়ী সেলিমের ‘ভূসিমালের দোকান’ রয়েছে বলে উল্লেখ করেছেন হলফনামায়। আইনপেশায় জড়িত জামায়াত নেতা এহসানুল মাহবুব জুবায়েরের শিক্ষাগত যোগ্যতা এলএলবি। চিকিৎসা ও অধ্যাপনা পেশায় জড়িত ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলনের প্রার্থী ডা. মোয়জ্জেম হোসেন খান ডিএফএম ডিগ্রীধারী, লাইব্রেরি ব্যবসায়ী এহসানুল হক তাহেরের শিক্ষাগত যোগ্যতা দাখিল, পেশায় ফল আমদানিকারক মুক্তাদির আহমদ তাপাদার এইচএসসি পর্যন্ত পড়ালেখা করেছেন বলে উল্লেখ করেছেন হলফনামায়।

কমেন্ট
শেয়ার করুন
  • 78
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    78
    Shares