পাকিস্তান থেকে হেরোইন পাচারের মামলায় সিলেটে দুইজনের মৃত্যুদণ্ড

49 total views, 1 views today

নিউজ ডেস্ক:: সিলেটে হেরোইন চোরাচালানের মামলার রায়ে দুইজনের মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। সোমবার (১১ জুন) দুপুরে এ রায় ঘোষণা করেন সিলেট মহানগর দায়রা জজ মুজিবুর রহমান ভূঁইয়া। ২০১৪ সালে পাকিস্তান থেকে ৮ কেজি ৪৫ গ্রাম হেরোইন আনার দায়ে তাদের এই সাজা দেওয়া হয়েছে।

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন বিয়ানীবাজার উপজেলার টিকরপাড়া উত্তরভাগ গ্রামের তমছির আলীর ছেলে পারভেজ আলম সুজন (২৬) ও রাজ্জাকপুর গ্রামের মুহিব আলীর ছেলে হোসেন আহমদ মানিক (৫১)। রায়ে দুই আসামিকে আদালত ১ লাখ টাকা জরিমানাও করেন।

দুই আসামির মধ্যে জামিন নিয়ে অনেক আগ থেকেই পলাতক রয়েছেন হোসেন আহমদ মানিক। আর কারাগারে রয়েছেন মামলার অপর আসামি পারভেজ আলম সুজন।

আদালতের বেঞ্চ সহকারী নজরুল ইসলাম জানান, আসামিরা দেশি-বিদেশি মাদক পাচারকারীচক্রের সক্রিয় সদস্য। ২০১৪ সালের মার্চ মাসে তাদের নামে বৈদেশিক ডাকঘর, শুল্ক ইউনিট, দক্ষিণ সুরমা সিলেট কার্যালয়ের ঠিকানায় পাকিস্তান থেকে ৪টি পার্সেল আসে। বিষয়টি নিয়ে সন্দেহ হলে ডাক বিভাগের সুপারভাইজার পার্সেল খুললে এতে ৮ কেজি ৪৫ গ্রাম হেরোইন পান। পরে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী অভিযান চালিয়ে তাদের ওই বছরের ২০ মে গ্রেফতার ও আদালতে সোপর্দ করে।

নজরুল ইসলাম আরও জানান, পাকিস্তান থেকে পার্সেলে সিলেটে হেরোইন আসার ঘটনায় ওই বছরের ১৩ মার্চ সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা মিজানুর রহমান বাদী হয়ে মাদক আইনে দক্ষিণ সুরমা থানায় মামলা দায়ের করেন। পরে তদন্ত শেষে থানার পুলিশ পরিদর্শক জমশেদ আলম ২০১৫ সালের ২ নভেম্বর আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করেন।

সিলেট মহানগর দায়রা জজ আদালতের পিপি মফুর আলী জানান, ‘ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা আন্তর্জাতিক মাদক পাচারকারী দলের সক্রিয় সদস্য, যা আদালতে প্রমাণ হয়েছে। পাকিস্তান থেকে হেরোইন দেশে নিয়ে এসে এগুলো দেশ ও বিদেশে বিক্রি করার কথা ছিল। কিন্তু পাকিস্তান থেকে পার্সেলটি আসায় সংশ্লিষ্টদের সন্দেহ হলে তারা পার্সেল কেটে হেরোইনের সন্ধান পান।’ এ রায় তিনি সন্তুষ্টি প্রকাশ করে বলেন, ‘এই রায় মাদক ব্যবসার সঙ্গে যারা সংশ্লিষ্ট রয়েছে তাদের কাছে দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে।’

কমেন্ট
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •