‘নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠন করতে হবে’

77 total views, 1 views today

নিউজ ডেস্ক:: আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে বর্তমান নির্বাচন কমিশন ভেঙে দেয়ার দাবি জানিয়েছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

আজ সোমবার দুপুরে রাজধানীর রমনা ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে জিয়াউর রহমানের ৩৭তম শাহাদাৎ বার্ষিকীর আলোচনা সভায় তিনি এ দাবি জানান। মির্জা আলমগীর বলেন, নির্বাচনের মাধ্যম ছাড়া ক্ষমতা বদলের কোন পথ নেই।

আগামী নির্বাচনের আগে এই নির্বাচন কমিশন বাতিল করতে হবে। পরিষ্কার ভাবে বলছি, এই নির্বাচন কমিশন কথায় কথায় সরকারি দলের সুবিধার্থে আইন পরিবর্তন করে। এই নির্বাচন কমিশন বাতিল করে নতুন নিরপেক্ষ কমিশন গঠন করতে হবে। তাদের মাধ্যমে একটি নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন করতে হবে।

একই সঙ্গে এই সরকারের পদত্যাগ করতে হবে, পার্লামেন্ট ভেঙে দিতে হবে। নির্বাচনে সেনাবাহিনী মোতায়েন করতে হবে।

জিয়াউর রহমান সম্পর্কে তিনি বলেন, তিনি যদি স্বাধীনতার ঘোষণা না দিতেন তাহলে আজকের এই দেশ তৈরি হতো কি না তা নিয়ে প্রশ্ন থেকে যায়। কারণ যাদের ঘোষণা করার কথা ছিল তারা কেউ আত্মসমর্পণ করেছিল। আর কেউ পালিয়ে গিয়েছিল। এই দেশে প্রথম স্বৈরশাসন শুরু করেছিল আওয়ামীলীগ। তারা একদলীয় বাকশাল কায়েম করেছিল। সংবিধানকে প্রথম কাটাছেড়া করেছিল আওয়ামীলীগ। আবার ১৯৭৫ সালে চারটা পত্রিকা রেখে সমস্ত গণমাধ্যম নিষিদ্ধ করেছিল।

আলোচনাসভায় অন্যান্যের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, বাবু গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ড. আবদুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, ভাইস চেয়ারম্যান মেজর অব. হাফিজ উদ্দিন, বেগম সেলিমা রহমান প্রমুখ।

কমেন্ট
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •