সিলেট নিউজ টাইমস্ | Sylhet News Times

দিরাইয়ে সন্ত্রাসীদের হামলায় আহত বৃদ্ধের অবস্থা আশংকাজনক

38 total views, 1 views today

নিউজ ডেস্ক:: সুনামগঞ্জের দিরাই পৌরসদরে সন্ত্রাসীদের স্বশস্ত্র হামলায় ১ বৃদ্ধ আহত হয়েছেন। আহত ব্যক্তি সুজানগর গ্রামের মৃত হানিফ উল্লার পুত্র হারুন মিয়া (৬০)। বৃহস্পতিবার বিকাল ৫ টায় গ্রামের দক্ষিণপ্রান্তে বাংলাদেশ ফি-মেইল একাডেমী সংলগ্ন ‍দিরাই-মদনপুর সড়কে এ ঘটনা ঘটে।

আহত ব্যক্তিকে স্থানীয় লোকজন দিরাই সরকারি হাসপাতালে নিয়ে এলে আশংকাজনক অবস্থায় তাকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। পূর্ব শত্রুতার জের ধরে সন্ত্রাসী সোয়েল তার বাহিনী নিয়ে এ হামলা চালিয়েছে বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন। হামলার পর সংঘবদ্ধ সন্ত্রাসীরা দিরাই বাজারে স্বশস্ত্র মহড়া দিয়ে বাসযোগে ঘটনাস্থলে ফের যাওয়ার চেষ্টা করলে সর্বত্র আতংক ছড়িয়ে পড়ে। দিরাই থানা পয়েন্ট সংলগ্ন আশপাশ এলাকার ব্যবসায়ীগণ ভয়ে দোকানপাঠ বন্ধ করে রাখেন। একপর্যায়ে থানা পুলিশ এসে সন্ত্রাসীদের বাস হতে নামিয়ে দিয়ে বাসটি অস্ত্রসহ থানায় নিয়ে যায়। এঘটনায় আহত হারুন মিয়ার ছোট ভাই বাদী হয়ে দিরাই থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দাখিল করেন।

লিখিত অভিযোগের বিবরণে জানা যায়, গত সোমবার সুজানগর গ্রামের আহত হারুন মিয়ার ভাই ও সন্ত্রাসী সোয়েল এর চাচাতো ভাইয়ের মধ্যে হাতাহাতির বিষয়কে কেন্দ্র করে ঘটনার সূত্রপাত। এই নিয়ে গ্রামে দু’পক্ষের মধ্যে বিরোধ দেখা দেয় এবং ঐদিন সন্ধ্যায় সোয়েল ও তার বাহিনীর হামলার শিকার হয়ে হারুন মিয়ার ছোটভাই মোবারক চোখে আঘাতপ্রাপ্ত হন। তাকে আশংকাজনক অবস্থায় সিলেট ওসমানী মেডিকেলে প্রেরণ করেন দিরাই হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। এঘটনায় হারুন মিয়া ও সোয়েলের লোকজনের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করে। এরই সূত্র ধরে বৃহস্পতিবার পৌরসদরের আনোয়ারপুর মোড়ের দোকান হতে বাড়িতে যাওয়ার পথে সোয়েল বাহিনীর স্বশস্ত্র হামলার শিকার হন বৃদ্ধ হারুন মিয়া।

হামলায় গুরুতর আহত হারুন মিয়াকে স্থানীয় লোকজন অজ্ঞান অবস্থায় উদ্ধার করে দিরাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসে। আশংকাজনক অবস্থায় গুরুতর আহত হারুন মিয়াকে সিলেট ওসমানী মেডিকেলে প্রেরণ করেন কর্তব্যরত চিকিৎসক সাবরিনা তালুকদার।

এব্যাপারে ডাঃ সাবরিনা তালুকদার বলেন, বেধড়ক মারপিটের কারণে আহত হারুন মিয়ার বাম হাত ও বাম পায়ের বিভিন্ন স্থানের হাঁড় ভেঙ্গে যাওয়াতে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে সিলেটে প্রেরণ করা হয়। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সর্তক অবস্থানের কারণে পরবর্তীতে কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। তবে সুজানগর গ্রামে দু’পক্ষের মাঝে উত্তেজনা বিরাজমান রয়েছে।

যে কোন সময় দু’পক্ষের লোকজন রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়তে পারে। দিরাই থানার অফিসার ইনচার্জ মোস্তফা কামাল বলেন, ঘটনার খবর পেয়ে থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। আহত হারুন মিয়ার ভাই বাদী হয়ে থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন, তদন্তসাপেক্ষে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

কমেন্ট
শেয়ার করুন