সিলেট নিউজ টাইমস্ | Sylhet News Times

বিচারের দাবি নিয়ে আবারও রাজপথে সালমান শাহ’র মা

87 total views, 1 views today

নিউজ ডেস্ক:: চিত্রনায়ক সালমান শাহ হত্যার বিচার চাইতে আবারও রাজপথে নামলেন সালমান ভক্তরা। সঙ্গে রয়েছেন সালমান শাহ’র মা নীলা চৌধুরী। সালমান শাহ’র মৃত্যু নিয়ে দায়ের করা মামলার পুলিশ প্রতিবেদন দাখিলের দিন ছিল আজ ২৬ এপ্রিল (বৃহস্পতিবার)। তবে শেষ পর্যন্ত তা দাখিল করা হয়নি বলে অভিযোগ সালমানের মা নীলা চৌধুরীর।

সালমান ভক্তদের সঙ্গে নিয়ে আজ পুরান ঢাকার সিএমএম আদালতের সামনে হাজির হয়েছিলেন নীলা চৌধুরী। দাবি জানিয়েছেন, সালমান হত্যার ন্যায় বিচারের। এই বিষয়ে তিনি প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ প্রত্যাশার কথা জানিয়েছেন।

১৯৯৬ সালের ৬ সেপ্টেম্বর নিজ বাসা থেকে চৌধুরী মোহাম্মদ শাহরিয়ার ইমন ওরফে সালমান শাহ’র মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। সেসময় এ বিষয়ে অপমৃত্যুর মামলা করেন তার বাবা কমর উদ্দিন আহমদ চৌধুরী (বর্তমানে প্রয়াত)।
পরে ১৯৯৭ সালের ২৪ জুলাই ছেলেকে হত্যা করা হয়েছে অভিযোগ করে মামলাটিকে হত্যা মামলায় রূপান্তরিত করার আবেদন জানান তিনি। অপমৃত্যুর মামলার সঙ্গে হত্যাকাণ্ডের অভিযোগের বিষয়টি একসঙ্গে তদন্ত করতে সিআইডিকে নির্দেশ দেন আদালত। সালমান শাহ’র মৃত্যুর ঘটনাটি তদন্ত করে ১৯৯৭ সালের ৩ নভেম্বর আদালতে চূড়ান্ত প্রতিবেদন দেয় সিআইডি।

চূড়ান্ত প্রতিবেদনে সালমান শাহর মৃত্যুকে অপমৃত্যু বলে উল্লেখ করা হয়। ১৯৯৭ সালের ২৫ নভেম্বর ঢাকার সিএমএম আদালতে ওই চূড়ান্ত প্রতিবেদন গৃহীত হয়। সিআইডির প্রতিবেদন প্রত্যাখ্যান করে তার বাবা কমর উদ্দিন আহমদ চৌধুরী রিভিশন মামলা দায়ের করেন। ২০০৩ সালের ১৯ মে মামলাটি বিচার বিভাগীয় তদন্তে পাঠায় আদালত। এর পর প্রায় ১২ বছর মামলাটি বিচার বিভাগীয় তদন্তে ছিল।

২০১৪ সালের ৩ আগস্ট ঢাকার সিএমএম আদালতের বিচারক বিকাশ কুমার সাহার কাছে বিচার বিভাগীয় তদন্তের প্রতিবেদন দাখিল করেন মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট ইমদাদুল হক। এ প্রতিবেদনে সালমান শাহর মৃত্যুকে অপমৃত্যু হিসেবে উল্লেখ করা হয়।

২০১৪ সালের ২১ ডিসেম্বর সালমান শাহর মা নীলুফার চৌধুরী ছেলের মৃত্যুর বিচার বিভাগীয় তদন্ত প্রতিবেদন প্রত্যাখ্যান করেন এবং বিচার বিভাগীয় তদন্ত প্রতিবেদনের বিরুদ্ধে নারাজি দেবেন বলে আবেদন করেন।

২০১৫ সালের ১০ ফেব্রুয়ারি নীলুফার চৌধুরী ঢাকা মহানগর হাকিম জাহাঙ্গীর হোসেনের আদালতে বিচার বিভাগীয় তদন্ত প্রতিবেদনের নারাজির আবেদন দাখিল করেন। আদালত নারাজির আবেদন গ্রহণ করে পুনঃতদন্তের জন্য র্যা পিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নকে (র্যা ব) পুনঃতদন্তের নির্দেশ দেন।

নারাজির আবেদনে সালমান শাহের মা নীলুফার চৌধুরী উল্লেখ করেন, আজিজ মোহাম্মদ ভাইসহ ১১ জন তার ছেলে সালমান শাহের হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত থাকতে পারেন।

পরবর্তী সময়ে ২০১৭ সালের ১০ ফেব্রুয়ারি ঢাকার সিএমএম আদালতে আরেকটি নারাজি দাখিল করেন সালমান শাহর মা নীলা চৌধুরী। যার ধারাবাহিকতায় মামলার প্রতিবেদন দাখিলের দিন ছিল আজ ২৬ এপ্রিল।

১৯৯৩ সালে ‘কেয়ামত থেকে কেয়ামত’ ছবির মাধ্যমে ঢাকাই সিনেমায় অভিষেক হয় সালমান শাহ’র। এরপর মাত্র চার বছরের চলচ্চিত্র ক্যারিয়ারে অভিনয় করেছেন ২৭টি চলচ্চিত্রে। পেয়েছেন আকাশছোঁয়া তারকাখ্যাতি। ১৯৯৬ সালের ৬ সেপ্টেম্বর রহস্যজনকভাবে মৃত্যুবরণ করেন এ নায়ক। সালমান শাহ আত্মহত্যা করেছিলেন নাকি তাকে হত্যা করা হয়েছে? এই রহস্যের জট খুলেনি দুই দশকেও।

কমেন্ট
শেয়ার করুন