শ্রীদেবীর মৃত্যু নিয়ে জট, জেরার মুখে বনি

36 total views, 1 views today

• শ্রীদেবীর মৃত্যুর ‘রহস্য’ উদ্‌ঘাটনে মাঠে নেমেছে তদন্ত দল। 
• সোমবার জিজ্ঞাসাবাদ করা হয় শ্রীদেবীর স্বামী বনি কাপুর ও হোটেল কর্মীকে।
• ননদের ছেলে মোহিত মারওয়ারের বিয়ের দাওয়াতে সপরিবারে দুবাই যান শ্রীদেবী।

বিনোদন ডেস্ক::  শ্রীদেবীর মৃত্যুর ‘রহস্য’ উদ্‌ঘাটনে মাঠে নেমেছে তদন্ত দল। গতকাল সোমবার জিজ্ঞাসাবাদ করা হয় শ্রীদেবীর স্বামী বনি কাপুর ও হোটেল কর্মীকে। আজ মঙ্গলবার দুবাইয়ের বিভিন্ন সূত্রের বরাত দিয়ে টাইমস অব ইন্ডিয়ার খবরে এ তথ্য জানানো হয়।

দুবাই পুলিশ সূত্র জানায়, আজ জিজ্ঞাসাবাদ শেষে শ্রীদেবীর মরদেহ ছাড়া হবে। একটি সূত্র জানায়, ‘ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন পাওয়ার পর আমাদের কিছু প্রশ্ন জেগেছে। আমরা মনে করছি, বিষয়টি আবার পুনঃ তদন্ত করা প্রয়োজন।’

ননদের ছেলে মোহিত মারওয়ারের বিয়ের দাওয়াতে দুবাই যান শ্রীদেবী। সঙ্গে স্বামী বনি কাপুর ও মেয়ে খুশিও ছিলেন। বিয়ের অনুষ্ঠানে শেষে মেয়ে খুশিকে নিয়ে মুম্বাই ফেরেন বনি। শ্রীদেবী থেকে গিয়ে ছিলেন। ছিলেন জুমেইরাহ ইমিরেটস হোটেলে। স্ত্রীকে চমকে দিতে বনি গত শনিবার বিকেলে দুবাই ফিরে যান। পরে স্বামীর সঙ্গে নৈশভোজে যাওয়ার জন্য প্রস্তুত হতে যান তিনি। বেশ কিছুক্ষণ পরে বাথটাবে তাঁর নিথর দেহ পাওয়া যায়

শ্রীদেবীর মরদেহ এখনো আল কিউসে হাসপাতালের মর্গে আছে। তিনি যে হোটেল কক্ষে ছিলেন, তা পুলিশ সিলগালা করে রেখেছে।

দুবাইয়ের আইন অনুযায়ী হাসপাতালের বাইরে কারও মৃত্যু হলে তা তদন্ত করে দেখা হয়, সেটি স্বাভাবিক মৃত্যু হলেও।

একটি সূত্রের বরাত দিয়ে টাইমস অব ইন্ডিয়ার খবরে বলা হয়, দুবাইয়ের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় কার্যালয়ে বনি কাপুরকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। মোহিত মারওয়ারের পরিবারকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। পাশাপাশি হোটেল কর্মীকেও জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে।

দুবাইয়ের একটি সূত্র জানায়, দুবাই পুলিশ প্রসিকিউশন (ডিপিপি) প্রয়োজন মনে করলে আবারও শ্রীদেবীর মরদেহের ময়নাতদন্ত করবে। একই সঙ্গে ডিপিপির অনুমতি ছাড়া বনি কাপুরকে দুবাই না ছাড়তে বলা হয়েছে। এরই মধ্যে পুলিশ শ্রীদেবীর ফোনকল রেকর্ড পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখছে।

ভারত থেকে শ্রীদেবীর মেডিকেল রেকর্ড চাওয়া হয়েছে। শ্রীদেবী এর আগে কী ধরনের চিকিৎসাসেবা নিয়েছেন এবং কী ধরনের অস্ত্রোপচারের করিয়েছেন, তা প্রসিকিউটর অফিস জানতে চায়। কারণ, ওই সব চিকিৎসার পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া তাঁর হঠাৎ মৃত্যু হয়েছে কি না, তাও দেখতে হবে।

মুম্বাইয়ে কাপুর পরিবারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, আজ শ্রীদেবীর মরদেহ মুম্বাইয়ে আসার কথা। এই মরদেহ আনার জন্য ভারতের শিল্পপতি অনিল আম্বানির ১৩ আসনের ব্যক্তিগত জেট দুবাই বিমানবন্দরে প্রস্তুত রাখা হয়েছে। ফ্লাইটটি বিকেল সাড়ে চারটায় ছাড়ার কথা ছিল। কিন্তু প্রসিকিউটর কার্যালয় থেকে মরদেহ বহনের চূড়ান্ত অনুমতি মেলেনি।

গতকাল পুলিশ শ্রীদেবীর ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন দেয়। সেখানে বলা হয়, হৃদ্‌রোগ নয়, দুবাইয়ের জুমেইরাহ এমিরেটস টাওয়ারের বাথরুমের বাথটাবের পানিতে দম আটকে মৃত্যু হয়েছে শ্রীদেবীর। স্থানীয় এ সংবাদমাধ্যম আরও জানিয়েছে, শ্রীদেবীর রক্তের নমুনায় অ্যালকোহল পাওয়া গেছে।

গতকাল সন্ধ্যায় দুবাই পুলিশ জানায়, বিষয়টি এখন দুবাই পাবলিক প্রসিকিউশনের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এরা এ ধরনের ঘটনায় নিয়মিত আইনি প্রক্রিয়া অনুযায়ী ব্যবস্থা নেবে।

সংযুক্ত আরব আমিরাতে নিযুক্ত ভারতের রাষ্ট্রদূত গতকাল সন্ধ্যায় টুইট করেছেন। লিখেছেন, ‘পুরো প্রক্রিয়া শেষ করতে দুই-তিন দিন লাগতে পারে।’ যত দ্রুত সম্ভব মরদেহ ভারতে পাঠানোর বিষয়ে এই অভিনেত্রীর পরিবারের সঙ্গে দূতাবাস নিয়মিত যোগাযোগ রাখছে।

কমেন্ট
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •