দাতব্য ট্রাস্ট দুর্নীতি: শুনানি মুলতবি, খালেদার জামিনও বেড়েছে

42 total views, 1 views today

নিউজ ডেক্স:: খালেদা জিয়ার আইনজীবীদের আবেদনে ঢাকার পঞ্চম বিশেষ জজ আদালতের বিচারক মো. আখতারুজ্জামান রোববার এ আদেশ দেন। একই আদালত গত ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া এতিমখানা ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দিয়ে কারাগারে পাঠান।

রোববার জিয়া দাতব্য ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় চতুর্থ দিনের মত যুক্তিতর্ক শুনানির দিন ছিল। কিন্তু খালেদা জিয়াকে এদিন কারাগার থেকে আদালতে হাজির করা হয়নি। সকালে আদালত বসার পর খালেদা জিয়ার আইনজীবী সানাউল্লাহ মিয়া বলেন, এতিমখানা ট্রাস্ট মামলায় সাজার রায়ের বিরুদ্ধে বিএনপি চেয়ারপারসনের আপিল হাই কোর্ট শুনানির জন্য গ্রহণ করেছে। রোববার দুপুরে তার জামিন আবেদনের শুনানি হওয়ার কথা রয়েছে। সুতরাং দাতব্য ট্রাস্ট মামলার শুনানি সোমবার পর্যন্ত মুলতবি করে খালেদা জিয়ার জামিন বাড়ানো হোক।

দুদকের আইনজীবী মোশারফ হোসেন কাজল এ সময় বলেন, খালেদা জিয়াকে রোববার যেহেতু হাজির করা হয়নি, সোমবার তাকে হাজির করার নির্দেশ দেওয়া হোক। এ সময় খালেদা জিয়ার আরেক আইনজীবী আবদুল রেজাক খান হাই কোর্টে জামিন শুনানির অপেক্ষায় থাকার বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে আদালতে হাজির করার আদেশ না দিতে অনুরোধ করেন বিচারককে।

শুনানি শেষে বিচারক আখতারুজ্জামান শুনানি সোমবার পর্যন্ত মুলতবি করে জামিনের মেয়াদ বাড়িয়ে দেন। জিয়া দাতব্য ট্রাস্টের নামে আসা ৩ কোটি ১৫ লাখ ৪৩ হাজার টাকা আত্মসাতের অভিযোগে ২০১০ সালের ৮ অগাস্ট তেজগাঁও থানায় এ মামলা দায়ের করে দুদক। তদন্ত কর্মকর্তা হারুন অর রশিদ ২০১২ সালের ১৬ জানুয়ারি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াসহ চার জনকে আসামি করে আদালতে অভিযোগপত্র দেন।

খালেদা জিয়ার একান্ত রাজনৈতিক সচিব হারিছ চৌধুরী, বিআইডব্লিউটিএয়ের নৌ নিরাপত্তা ও ট্রাফিক বিভাগের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক জিয়াউল ইসলাম মুন্না এবং ঢাকা সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র সাদেক হোসেন খোকার একান্ত সচিব মনিরুল ইসলাম খানও এ মামলায় আসামি।

কমেন্ট
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •