সিলেট নিউজ টাইমস্ | Sylhet News Times

উত্ত্যক্ততা সহ্য করতে না পেরে কলেজ ছাত্রীর আত্মহত্যা

89 total views, 2 views today

নিজস্ব প্রতিনিধি::‘সিলেট মইন উদ্দিন আদর্শ মহিলা কলেজ’র একাদশ শ্রেণীতে অধ্যয়নরত প্রতারকের প্রতারণা ও বখাটের উত্ত্যক্ততা সহ্য করতে না পেরে তাছলিমা খানম রিমা (১৬) নামক এক কলেজ ছাত্রীর আত্মহত্যার করে। সে সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক ও লামাকাজী ইউনিয়নের বিদ্যাপতি (কেশবপুর) গ্রামের ডাক্তার মোহাম্মদ শাহনুর হোসাইনের কন্যা।

শুক্রবার দিবাগত রাতে নিজ বাড়ির শয়নকক্ষে সিলিং ফ্যানের সাথে নিজের ওড়না গলায় পেঁছিয়ে আত্নহত্যা করে রিমা।

রিমার পরিবারের অভিযোগ, সিলেটের পনিটুলাস্থ এক আত্বীয়ের বাসায় থেকে খেলাপড়া করতো কলেজ ছাত্রী তাছলিমা খানম রিমা। আর দীর্ঘদিন ধরে কেশবপুর গ্রামের মৃত তাজ উদ্দিনের পুত্র ও লামাকাজী ইউনিয়ন পরিষদের তথ্য ই-সেবা কেন্দ্রের উদ্যোক্তা সুমন আহমদ রাস্তাঘাটে প্রায় সময়ই কলেজ ছাত্রী তাছলিমা খানম রিমাকে উত্ত্যক্ত করতো। বিষয়টি একাধিকবার সুমনের পরিবারের সদস্যদের অবগত করা হয়। তাতে সুমন আরও ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে। এক পর্যায়ে সিলেট থেকে রিমাকে নিজের বাড়িতে নিয়ে আসেন তার পরিবারের সদস্যরা।

ক্ষিপ্ত হয়ে উঠা প্রতারক সুমন ১৪ জানুয়ারি প্রতারণার মাধ্যমে কলেজ ছাত্রী রিমার সাথে দেখা করে মোবাইলে তার (রিমা) আপত্তিকর ছবি ধারণ করে নেয়। এরপর ছবিটি ফেসবুকে পোষ্ট করার ভয় দেখিয়ে রিমা’কে জিম্মি করে অন্যত্র (সুনামগঞ্জ শহরে) নিয়ে যায়। ওই দিন দুপুর ১২ টার দিকে রিমা’র বড় ভাই আকমল হোসাইন (১৯)’র মোবাইল ফোনে ম্যাসেজ দিয়ে রিমা তার কাছে জিম্মি রয়েছে বলে জানায় সেই বখাটে সুমন। ম্যাসেজ রাতেই সুনামগঞ্জে গিয়ে মেয়েকে উদ্ধার করে নিয়ে আসেন রিমার পিতা ডাক্তার শাহনুর হোসাইন। মোবাইলে আপত্তিকর ছবি তোলে প্রতারণা ও উত্ত্যক্ত করার অপমান সহ্য করতে না পারায় শুক্রবার রাতে রিমা আত্মহত্যা করেছে বলে দাবি কলেজ ছাত্রীর পরিবারের।

ময়না তদন্ত শেষে শনিবার বিকেলে পারিবারিক কবরস্থানে রিমার দাফন সম্পন্ন করা হয়েছে জানিয়ে কলেজ ছাত্রী রিমার পিতা শাহনুর হোসাইন বলেন, মেয়ে হত্যার সুষ্ঠ বিচার ও প্রতারক সুমনের দৃষ্ঠান্তমূলক শাস্তির জন্য তিনি বিশ্বনাথ থানায় আজ-কালের মধ্যে হত্যা মামলা দায়ের করবেন। সুমনের উচিত শাস্তি হলে আর কোন মেয়েকে এভাবে আত্বহত্যা করতে হবে না বলে দাবি তার। কোন পিতা-মাতাকে যাতে অকালে তাদের সন্তানকে হারাতে না সে জন্য প্রশাসনের সু-দৃষ্টি ও ন্যায়-বিচার কামনাই তাদের।

বিশ্বনাথ থানার এসআই মিজানুর রহমান জানান, শাহনুর হোসাইন বাদি হয়ে থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করেছেন মামলা (নং ২/১৭.০২.১৮ইং)।

এব্যাপারে কথা বলার জন্য অভিযুক্ত সুমন আহমদের মোবাইল ফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করা চেষ্টা করেও সংযোগ পাওয়া যায়নি।

কমেন্ট
শেয়ার করুন