সিলেটস্থ দক্ষিণ ছাতক উন্নয়ন পরিষদের কমিটি নিয়ে উত্তেজনা ও মিশ্র প্রতিক্রিয়া

36 total views, 1 views today

দক্ষিণ ছাতক উন্নয়ন পরিষদের কমিটি গঠন কে কেন্দ্র করে চেীহট্রাস্থ লাঙথুরাই রেষ্টুরেন্টে ছিল টান টান উত্তেজনা। গত সোমবার(২২জানুয়ারি) সন্ধা ৭ ঘটিকার সময় দক্ষিণ ছাতক উন্নয়ন পরিষদেরই দু-মেরুর বলয় উপস্থিত হওয়ায় টান টান উত্তেজনা বিরাজ করে। এহেন পরিস্থিতি দেখে লাঙথুরাই রেষ্টুরেন্টের কতৃপক্ষ আব্দুল হান্নান তরিগরি করে তাৎক্ষণিক অন্য একটি হল দিয়ে পরিস্থিতি সান্ত করেন।

অনুসন্ধানে জানা যায়, দক্ষিণ ছাতক উন্নয়ন পরিষদের একটি পক্ষ কমিটি গঠনের জন্য আগে থেকে ভেনু লাঙথুরাই রেষ্টুরেন্টে নির্ধারন করা ছিল। নির্ধারিত সময়ের মধ্যেই অন্য একটি পক্ষ দক্ষিণ ছাতক উন্নয়ন পরিষদের স্থায়ী পরিষদের সদস্য ও অত্র সংঘটনের আহবায়ক আবুল হাসনাত,সাবেক সাধারন সম্পাদক রশিদ আহমদ,ও আলী আমজদের নেতৃত্বে অর্ধশতাধিক সদস্যদের নিয়ে লাঙথুরাই রেষ্টুরেন্টে উপস্থিত হন। তারা চলমান দক্ষিণ ছাতক উন্নয়ন পরিষদের আহবায়ক ও কর্তা ব্যক্তিত্ব সহ সদস্যদের সাথে বসার জন্য আহবান জানান। শুরুতেই তাদের আহবানে কিছু সদস্যের আশার বানী শুনালেও তা কংখিত রূপ নিতে পারেনি। তারা দফায় দফায় কিছু সদস্যের সাথে আলোচনা করলেও তা সূফল ভয়ে আনতে পারেনি। চলমান দক্ষিণ ছাতক উন্নয়ন পরিষদের কর্তা ব্যক্তিত্ব শফিক আহমদ, ছাদিকুর রহমান ছাদিক, উবায়দুল হক শাহীন সহ উভয়ই আহবায়ক পীর মোহাম্মদ আলী মিলনের দোহাই দিয়ে বলতে শুনা যায়, প্রধান আহবায়ক পীর মোহাম্মদ আলী মিলনের নেতৃত্বে আলোচনা করে সবার সম্মতিক্রমে দু-পক্ষ মিলে আলোচনায় বসবো। কিন্তু আহবায়ক পীর মোহাম্মদ আলী মিলন আসার পরে সব গুরেবালি। অপর পক্ষকে কোন পাত্তা না দিয়ে ভেনু ত্যাগ করে লুকুচুরি করে রাতের অন্ধকারে অজ্ঞাত স্থানে দক্ষিণ ছাতক উন্নয়ন পরিষদের কমিটি ঘোষনা করা হয়।

অনুসন্ধানে আরো জানা যায়, মিলন, শফিক আহমদ, ছাদিকুর রহমান ছাদিক, উবায়দুল হক শাহীন অনুসারী উভয় পক্ষের বিদ্যমান বিবাদ মেটানোর জন্য উপদেষ্টা পরিষদের সদস্যবৃন্দের নিকট বার বার ধর্না দেন। ব্যক্তি বিবেচনা করে কোন পাত্তা দেননি উপদেষ্টা মন্ডলী। উপদেষ্টা মন্ডলী এক পর্যায়ে তাদের কাকুতি মিনতির কারনে কথা দিয়েছিলেন উভয় পক্ষকে ডেকে সমাধান করে দিবেন। এই উপলক্ষে উভয় পক্ষ কথা দিয়েছিল গত ২ জানুয়ারি সন্ধ্যায় লাঙথুরাই রেস্তুরায় এক সাথে বসবে। হাসনাত, রশিদ,আমজাদ,আনোয়ার,মিল্টন অনুসারী পক্ষ ও শফিক,ছাদিক গংরা উপস্থিত হয়নি। পরে উভয় পক্ষকে জানানো হয় মিমাংসা না হওয়া পর্যন্ত কোন পক্ষ যেন কমিটি গটন সহ দক্ষিণ ছাতক উন্নয়ন পরিষদের কার্য়ক্রম বন্ধ রাখা হয়।

এ প্রসঙ্গে দক্ষিণ ছাতক উন্নয়ন পরিষদের সাবেক সাধারন সম্পাদক আলী আমজাদ বলেন, দক্ষিণ ছাতক উন্নয়ন পরিষদ কারো ব্যক্তিগত সম্পদ না যে তা কুক্ষিগত করে রাখবো। দক্ষিণ ছাতক উন্নয়ন পরিষদ আপনার আমার সবার, আমরা সবাই এক হয়ে সমাজের জন্য কাজ করতে চাই। এই দক্ষিণ ছাতকেরই সব না কিছু অসাধু লোকদের কারনে দক্ষিণ ছাতক উন্নয়ন পরিষদ দু ভাগে বিভক্ত। বার বার তারা উপদেষ্ঠাদের কথা অমান্য করতেছে, আজ দক্ষিণ ছাতক উন্নয়ন পরিষদ নিয়ে যে বানিজ্যিক খেলায় মত্ত হইছে তার ফল ভাল হবে না।
দক্ষিণ ছাতক উন্নয়ন পরিষদের দুইজন সদস্য জানান, গতকাল ২২ জানুয়ারী সন্ধ্যায় দক্ষিণ ছাতক উন্নয়ন পরিষদের আগে থেকে নতুন কার্যনিবাহী পরিষদ ঘোষণার অনুষ্ঠান। সেখানে গিয়ে দেখা যায় দক্ষিণ ছাতক উন্নয়ন পরিষদের সাবেক সহ-সভাপতি ও সেচ্ছাসেবকলীগ নেতা রশিদের সহ দক্ষিণ ছাতক উন্নয়ন পরিষদের সদস্যদের নেতৃত্বে নির্ধারিত ভেনুতে মিটিং চলিতেছে। এর কারন জানতে চাওয়া হলে তারা উত্তপ্ত হয়ে বলেন, কিসের কমিটি গঠনের মিটিং,এটাই দক্ষিণ ছাতক উন্নয়ন পরিষদের সাধারন মিটিং, তাই কিছু বুজে না উটতে পেরে আমরা লাংতুরাই থেকে চলে আসি।

চলমান পাঁচ সদস্য বিশিষ্ট নেতৃত্ব দানকারী ২য় আহবায়ক মুজিবুুর রহমান মালদারের বলেন, আমি সংগঠনের স্থায়ী পরিষদ সদস্য,বর্তমান আহবায়ক কমিটির যুগ্ন আহবায়ক,আমাকে না জানিয়ে লুকিয়ে রাতের আধারে শফিক, ছাদিক, মিলন, শাহীনের সিণ্ডিকেট টাকার বিনিময়ে পদ বাণিজ্যকরণ করে তারা তাদের পকেট কমিটি ঘোষনা করেছে, আমি এই ঘৃণিত সিদ্ধান্তের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই। তারা এর আগেও দক্ষিণ ছাতক উন্নয়ন পরিষদের কমিটিতে ছাদিক শফিক টাকার বিনিময়ে পদ বাণিজ্য করণ করেছিল বিধায় দক্ষিণ ছাতক উন্নয়ন পরিষদের দুটি বলয় সৃষ্টি হয়। এ ব্যাপারে দক্ষিণ ছাতকবাসীকে সজাগ থাকা সহ এদের বর্জন করার আহবান জানাই।

এব্যপারে যুগ্ন আহবায়ক ও স্থায়ী পরিষদ সদস্য উকিল আলী বলেন, ছাতকের সম্মানিত মুরব্বীয়ানদের ডিঙ্গিয়ে রাতের আধারে কমিটি ঘোষনার মত ঘৃণিত সিদ্ধান্তের তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জানাচ্ছি। এই সব দুষ্কৃতকারীদের সামাজিকভাবে বয়কট করার আহবান জানাই।

সদ্য সাবেক সিনিয়র সহ সভাপতি ফয়সল আহমদ বাবুল বলেন, সিলেটে বসবাসরত ছাতকের সম্মানিত ব্যক্তিবর্গ ও উপদেষ্টা মন্ডলীর সিদ্ধান্তকে অসম্মান করে, গঠনতন্ত্র পরিপন্থী, পদ পদবী বাণিজ্যককরণ করে, রাতের আধারে দক্ষিণ ছাতক উন্নয়ন পরিষদের কমিটি ঘোষণার মত ঘৃণিত সিদ্ধান্তের তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জানাচ্ছি।

কমেন্ট
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •