নগরীতে নারীর উপর পূর্বস্বামীর হামলা : পার্লার ভাংচুর

108 total views, 1 views today

সিলেট নগরীতে তালকপ্রাপ্তা নারীর উপর পূর্বস্বামীর হামলা ও দোকান ভাংচুরের অভিযোগ পাওয়া গেছে। গতকাল মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে নগরীর উপশহর সোনারপাড়াস্থ ‘সোনিয়া বিউটি পার্লারে’ এ ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে । এ ঘটনায় এসএমপির শাহপরাণ থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

অভিযোগে প্রকাশ, সিলেটের কানাইঘাট থানার দুর্লভপুর গ্রামের হাজী সিরাজ মিয়ার পুত্র কবির আহমদ শহরতলী মেজরটিলায় দীর্ঘদিন ধরে বসবাস করে আসছিলেন। ওই এলাকায় থাকার সুবাদে মেজরটিলা কুসুমবাগের পার্লার ব্যবসায়ী মরিয়ম আক্তার লিপি নামের এক যুবমহিলার সাথে প্রেমের সম্পর্ক করে তাকে বিয়ে করেন। পরবর্তী সময়ে বনিবনা না হওয়ায় মরিয়ম আক্তার লিপি তাকে তালাক দিয়ে তার বিরুদ্ধে একটি মামলাও করেন। মামলাটি আদালতে বিবচারাধীন থাকেলেও লিপির পিছু ছাড়েন নি যুবলীগ নেতা পরিচয়ের কবির। মামলা তুলে নিতে ও তাকে নিয়ে ফের ঘরসংসার করতে মরিয়া হয়ে উঠেন তিনি। তাই কবির প্রায়ই লিপিকে ভয়ভীতি ও হুমকি ধমকি দিয়ে আসছিলেন।

এরই ধারাবাহিকতায় গতকাল মঙ্গলবার সকালে কবির তার পরিত্যাক্তা লিপির মালিকানাধীন সোনারপাড়াস্থ সোনিয়া বিউটি পার্লারে যান এবং মামলা তুলে নিয়ে তার সাথে পুনরায় ঘরসংসার করার প্রস্তাব দেন। মরিয়ম আক্তার লিপি তাতে অসম্মসতি জানালে ক্ষিপ্ত হয়ে কবির তার পার্লারে ভাংচুর করে প্রায় ২০ হাজার টাকার ক্ষতিসাধন ও লিপিকে মারধর করে পার্লারে থাকা ১২ হাজার টাকা লুটে নেন। আশপাশের ব্যবসায়ীরা এগিয়ে আসলে লিপি রক্ষা পান । এসময় লিপিকে পরবর্তীতে খুন ও অপহরনের হুমকি দিয়ে ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন কবির। কবির বর্তমানে শিবগঞ্জ খরাদিপাড়ায় বসবাস করছেন । খবর পেয়ে একদল পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে । এ ঘটনায় মরিয়ম আক্তার লিপি বাদী হয়ে কবির আহমদের বিরুদ্ধে এসএমপি’র শাহপরাণ থানায় অভিযোগ দায়ের করেন।

সূত্র জানায় ২০১১ সালে কবির প্রথমে তানিয়া চৌধুরী নামের এক মেয়েকে বিয়ে করেছিরেন। কিন্তু কনে তুলে আনার আগেই সে বিয়ে ভেঙ্গে যায় এবং তানিয়া তাকে আইনত তালাক দেয়। পরে প্রেম করে বিয়ে করে মরিযম আক্তিার লিপিকে। বর্তমানে সে দুই সন্তানের জননী আরেক মহিলাকে বিয়ে করায় লিপি তাকে তারাক দেয়।

শাহপরাণ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আখতার হোসেন অভিযোগ প্রাপ্তির সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। প্রাথমিক তথ্যের সত্যতা পাওয়া গেলে নিয়মিত মামলা রুজু ও আসামীকে গ্রেফতার করা হবে।

কমেন্ট
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •