ছাতকে প্রবাসীকে হুমকি ও চাদাদাবি: আদালতে মামলা, তদন্তে পুলিশ

68 total views, 1 views today

সুনামগঞ্জের ছাতকে প্রবাসী পরিবারকে চাঁদাদাবী ও হুমকি দেয়ায় আদালতে মামলা দায়ের করলে পুলিশকে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। গতকাল শনিবার(২০জানুয়ারি) বেলা ০১ঘটিকার সময় ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ছাতক থানা পুলিশ।

জানা যায়, ছাতক উপজেলার বুরাইয়া গ্রাম্য পঞ্চায়েত কর্তৃক যুক্তরাজ্য এক প্রবাসী পরিবারকে ১০ লক্ষ টাকা চাঁদাদাবী ও হুমকি দিয়ে পঞ্চায়েত থেকে বাদ দেয়ার অভিযোগে আদালতে ১৩ জনের নাম উলে­খ করে মামলা দায়ের করা হয়। এ ঘটনায় প্রবাসী পরিবারসহ পঞ্চায়েত পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে। ফলে যে কোন সময় এ দু’পক্ষের মধ্যে রক্তক্ষয়ি সংঘর্ষের আশঙ্কা করছেন এলাকাবাসী।

মামলার বিবরনীতে যা বলা হয়, ছাতক উপজেলার দোলারবাজার ইউনিয়নের বুরাইয়া গ্রামের মৃত হাজী আবদুল আলীর ছেলে আবদুল হাসনাত স্বপরিবারে দীর্ঘদিন যাবত যুক্তরাজ্যে বসবাস করে আসছেন। তার অনুপস্থিতিতে বাড়ি-ঘর-জমি জামা দেখা শুনা করে আসছেন একই গ্রামের আশিক আলী ও তার স্ত্রী সূর্যবান বিবি।

প্রবাসী আবদুল হাসনাত গ্রাম এবং এলাকায় বিভিন্ন সময় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, মসজিদ-মাদরাসাসহ গরিব-অসহায় মানুষদের আর্থিক সাহায্য ও সহযোগিতা করে আসছেন। তিনি যুক্তরাজ্যে অবস্থানরত বাঙালী কমিউনিটিতে সুনামের সাথে বসবাস করে আসছেন। সম্প্রতি গ্রাম পঞ্চায়েত নামে কতিপয় লোক মসজিদের ওযুখানা বাবদ ৩লক্ষ টাকাসহ মোট ১০ লক্ষ টাকা চাঁদা দাবি করে আসছে। তাদের দাবিকৃত টাকা এককালিন পরিশোধ করতে অপারগতা প্রকাশ করলে প্রবাসী আবদুল হাসনাতের উপর ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে পঞ্চায়েত নামে গ্রামের কতিপয় কয়েকজন লোক। এরা বুরাইয়া হাই স্কুল এন্ড কলেজ নামক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটিকে চাঁদাবাজির মাধ্যমে পরিচালনা করে আসছে। এ চাঁদাবাজিকে তাদের রোজগারের অবলম্বন হিসেবে বেচে নিয়েছে। চাঁদা না পেয়ে ক্ষিপ্ত হয়ে গ্রাম পঞ্চায়েত নামধারিরা প্রবাসীর বসতবাড়ি, পুকুরের মাছ, বৃক্ষরাজি, জায়গা-জমি আত্মসাতের ষড়যন্ত্র করে তারা। এর ধারাবাহিকতায় ২৭ নভেম্বর রাত ৮টার দিকে গ্রামের কিছু সংখ্যক সহজ-স্মরল মানুষকে প্রলোভন দেখিয়ে স্বার্থান্বেষি মৃত মদরিছ আলীর ছেলে রইছ আলীর নেতৃত্বে ও তার সভাপতিত্বে মসজিদের দোকানের সামনে এক সভা করে প্রবাসী পরিবারকে গ্রাম পঞ্চায়েত থেকে বাদ দেয়া হয়। তারা আরো সিদ্ধান্ত নেয়, প্রবাসী আবদুল হাসনাত বা তার পরিবারের কেই যদি গ্রামে আসে তবে গ্রামের আবাসিক এলাকা গেইটে গাড়ি রেখে জুতা হাতে নিয়ে খালি পায়ে প্রবেশ করতে হবে। এ পরিবার পঞ্চায়েত পূনরায় অর্ন্তভ’ক্ত হতে চাইলে ওযুখানা বাবদ ৩লক্ষ টাকাসহ মোট ১০লক্ষ টাকা পরিশোধ সাপেক্ষে আলোচনা করা যেতে পারে। এমন কি প্রবাসীর বাড়িতে দেখাশুনার দায়িত্বে থাকা কেয়ারটেকার আশিক আলী ও তার স্ত্রী সূর্যবান বিবিকে ১৫ দিনের মধ্যে বাড়ি ছেড়ে যেতে নির্দেশও দেয়া হয়েছে। পঞ্চায়েত নামধারি ব্যক্তি স্বাক্ষরিত নির্দেশ ও সিদ্ধান্তনামায় আরো উলে­খ করা হয়, প্রবাসী আবদুল হাসনাতের অবর্তমানে তার সহায় সম্পত্তি মৃত আবদুল আজিজের ছেলে প্রবাসীর চাচাতো ভাই আলী আহমদ ভোগ দখল করবে।

এ ঘটনায় প্রবাসী আবদুল হাসনাতের ভগ্নিপতি উপজেলার ছৈলা আফজলাবাদ ইউনিয়নের শেখপুর সিংগুয়া গ্রামের মৃত নসিব আলীর ছেলে ফয়ছল আহমদ বাদি হয়ে রইছ আলী (৫৮) কে প্রধান আসামি করে ১৩জনের নামউলে­খ করে ৮ ডিসেম্বর ছাতক থানায় একটি লিখিত অভিযোগ (সি: ১০৮৭) দায়ের করেন।

পরে ১৭ ডিসেম্বর ছাতক উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবরে লিখিত অভিযোগ করা হয়। বর্তমানে সুনামগঞ্জ জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্টেট অদালতে সিআর মোকদ্দমা নং ০৯/১৮ইং অভিযোগ দায়ের করা হয়।
আদালতের নির্দেশে তদন্ত প্রতিবেদনের জন্য এসআই আমির খসরু কে দায়িত্ব দেয়া হয় এবং তিনি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।
এ ব্যাপারে ছাতক থানার এসআই আমির খসরু বলেন, তদন্ত সাপেক্ষে আইনত ব্যবস্থা গ্রহণ করে আদালতে প্রতিবেদন দেয়া হবে।

কমেন্ট
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •