আঙ্গাউড়া বালু মহালে সন্ত্রাসী হামলা-লুটপাট: ইজাদারের মামলা

সিলেট সদর উপজেলার চেঙ্গেরখাল নদীর আঙ্গাউরা বালু মহালে ইজাদারের লোকজনের উপর হামলা ও লুটপাটের ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। গত ২২ ডিসেম্বর শুক্রবার এয়ারপোর্ট থানায় ১৮ জনের নাম উলে­খসহ ২০ জনকে অজ্ঞাত আসামী করে একটি এজাহার দায়ের করেন বালু মহালের ইজারা গ্রহীতা মো. লোকমান মিয়া। তিনি নগরীর মেন্দিবাগ এলাকার মৃত জহুর আলী পুত্র। এয়ারপোর্ট থানায় মামলা নং- ১১ (২২.১২.১৭)।

এজাহারে উলে­খ করা হয়, সদর উপজেলার এয়ারপোর্ট থানাধীন পীরেরগাঁও এলাকার বাইলারকান্দি গ্রামে চেঙ্গেরখাল নদীর আঙ্গাউরা বালু মহাল ইজারা নেন লোকমান মিয়া। এরপর থেকে তিনি সরকারি বিধি নিষেধ মেনে বালু উত্তোলন করে আসছেন।

কিন্তু সম্প্রতি ঐ এলাকার কিছু স্বার্থান্বেষী ও চাঁদাবাজ লোক বালু উত্তোলনে বাধা প্রদান করে আসছে। বালু মহালে কর্মরতদের ভয়ভীতি ও হুমকি ধমকি দিয়ে আসছেন। এ নিয়ে এলাকায় একাধিকবার সালিশ বৈঠক বসে। কিন্তু এর কোন সুরাহা হয়নি। চাঁদাবাজ সন্ত্রাসীরা আরো বেপরোয়া হয়ে উঠে এবং গত ১৫ অক্টোবর উমাইরগাও এলাকার কামাল মিয়া ও মন্নান মিয়ার নেতৃত্বে ৪০/৪৫ জন লোক দেশীয় অস্ত্র শস্ত্রে সজ্জিত হয়ে বালু মহালে হামলা করে। বালু মহালে কর্মরতদের ভয়ভীতি দেখিয়ে জোরপূর্বক সব কাজ বন্ধ করে দেয় এবং ২ লাখ টাকা চাঁদা দাবী করে।

পরবর্তীতে গত ১ ডিসেম্বর রাত ৭টায় আবারো তাদের নেতৃত্বে বালু মহালে হামলা করে সন্ত্রাসীরা নৌকা লুটপাট করে নিয়ে যায়। এব্যাপারে স্থানীয়রা সালিশ বৈঠকে উক্ত বিষয়টি সমাধান করার চেষ্টা করলেও চাঁদাবাজরা তা মেনে নেয়নি। তার প্রেক্ষিতে গত ২১ ডিসেম্বর দুপুর দেড় টায় কামাল মিয়া ও মন্নান মিয়ার নেতৃত্বে ৪০/৪৫ জন লোক দা, রামদা, ছুলফি, ঝাটা, ডেগার, লোহার রড, বাশের লাঠি, কাঠের রুল, লোহার পাইপসহ দেশীয় অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে হামলা চালায়। বালু মহালে কর্মরতদের অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে মারধর করতে থাকে। মারধরের প্রতিবাদ করলে জয়নাল আহমদ নামে এক কর্মচারীকে হামলাকারীরা গুরুতর আহত করে।

লোহার রড, রামদা দিয়ে আঘাত করলে সে গুরুতর রক্তাক্ত জখম হয়। তাকে তাৎক্ষণিক ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। এসময় হামলাকারীরা বালু মহালের বিভিন্ন যন্ত্রপাতি ভাংচুর করে ড্রেজার মেশিন থেকে ৪টি বড় ব্যাটারী, ৩টি স্লেফ স্টার্টার, ৪ ড্রাম সহ প্রায় সাড়ে ৫ লাখ টাকার ক্ষতিসাধন ও লুঠপাট করে। উক্ত ঘটনাটি লোকমান মিয়া স্থানীয়দের জানাইলে তারা আইনী আশ্রয় নেওয়ার পরামর্শ দেন।

কমেন্ট
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •