কানাইঘাটে দেড় মাসের শিশুকে বিষ খাইয়ে হত্যা

97 total views, 1 views today

নিউজ ডেক্স:: কানাইঘাট উপজেলার বড়চতুল ইউপির বড়চতুল গ্রামে মঙ্গলবার সৌদি প্রবাসীর দেড় মাসের একমাত্র ফুটফুটে অবুঝ শিশু সন্তান নাদিম আহমদকে মুখে বিষ ঢেলে নির্মম ভাবে হত্যা করা হয়েছে। অবুঝ নিষ্পাপ শিশুর মুখে বিষ ঢেলে হত্যার ঘটনা কানাইঘাটে এর আগে কখনও শুনা যায়নি। এমন নির্মম ঘটনায় জনমনে ধিক্কার ও ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

শিশুটির মুখে বিষ ঢেলে হত্যার ঘটনায় তারই আপন চাচীকে দায়ী করা হচ্ছে। জানা যায়, বড়চতুল গ্রামের প্রবাসী নজরুল ইসলামের দেড় মাসের শিশু পুত্র নাদিম আহমদের মুখে গত মঙ্গলবার সন্ধ্যার দিকে কীটনাশক বিষ ঢেলে দেয়া হয়। একপর্যায়ে মুমুর্ষ অবস্থায় এই শিশুকে সন্ধ্যা ৭টার দিকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে তার মা সুমি বেগম ও স্বজনরা নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসকগণ শিশুটিকে বিষ খাওয়ানো হয়েছে, তার অবস্থা সংকটজনক উল্লেখ করে তাৎক্ষণিক সিওমেক হাসপাতালে প্রেরণ করেন। সেখানে নিয়ে যাওয়ার পর শিশুটিকে মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসকগণ।

ময়না তদন্তের পর শিশুটির লাশ বুধবার সন্ধ্যায় তাদের স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। সরেজমিনে জানা যায়, বড়চতুল গ্রামের অলিউর রহমানের পুত্র শিশুটির পিতা নজরুল ইসলাম ও তার বড় ভাই তাজ উদ্দিন সৌদি আরবে থাকেন। পাকা দেয়াল ঘেরা বাড়ীতে শিশুটির মা সুমি বেগম ও জ্যা সুমানা বেগম এবং তাদের শশুর শাশুড়ী বসবাস করেন। ঘটনার সময় শশুর শাশুড়ী বাড়ীতে ছিলেন না। মঙ্গলবার সন্ধ্যার দিকে শিশুটির মুখে বিষ ঢেলে দেয়া হয়। এ ঘটনায় শিশুর মা সুমি বেগম ও তার স্বজনরা জানিয়েছেন, পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে শিশুটির চাচী দুই সন্তানের জননী সুমানা বেগম শিশু নাদিমকে কোলে নিয়ে মুখে কীটনাশক ঢেলে দিলে শিশুটি বিষের যন্ত্রনায় ছটফট শুরু করে।

সুমানা বেগম একটি তোয়ালে দিয়ে শিশুটির মুখের বিষ মুছে দেন। তাৎক্ষণিক শিশুটির মুখ দিয়ে রক্ত বের হলে মা সুমি বেগম শোর চিৎকার শুরু করেন। এ সময় আশপাশের লোকজন এসে তাৎক্ষণিক শিশুটিকে হাসপাতালে নিয়ে যান। শিশুটির মা সুমি বেগম আহাজারি করে বলেন, তাঁর একমাত্র বুকের ধন দেড় মাসের ফুটফুটে ছেলেকে জ্যা
সুমানা বেগম বিষ খাইয়ে মেরেছে।

পারিবারিক কলহের কারনে এ ঘটনাটি ঘটেছে বলে স্থানীয় লোকজন জানিয়েছেন। বিষ প্রয়োগ করে শিশু হত্যার ঘটনার খবর পেয়ে প্রবাসী তাজ উদ্দিনের বাড়ীতে এলাকার শত শত নারী পুরুষ ভিড় করেন। তারাও এ ঘটনার জন্য সুমানা বেগমকে দায়ী করেছেন। সুমি বেগমের স্বজনরা বুকফাটা আর্তনাদ করে বলেন, আপন মামাতো ভাই প্রবাসী নজরুল ইসলামের সাথে সুমি বেগমের বিয়ে তিন বছর পূর্বে হয়। নজরুল ইসলামের বড় ভাই তাজ উদ্দিনের স্ত্রী সুমানা বেগম চেয়েছিল তার খালাতো বোনের সাথে নজরুলের বিয়ে দিবে, কিন্তু সেই বিয়েটি না হওয়ায় ক্ষিপ্ত ছিল সুমানা বেগম।

গত মঙ্গলবার সুমি বেগমকে মোবাইল ফোনে তার পিত্রালয় থেকে ডেকে এনে তাদের নির্জন বাড়ীর একটি কক্ষে সন্ধ্যার সময় শিশুটিকে কোলে নিয়ে সুমানা বেগম বিষ প্রয়োগ করে। এ ঘটনায় শিশুটির মা সুমি বেগম বাদী হয়ে কানাইঘাট থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নিচ্ছেন। হত্যাকান্ডের সন্দেহে সুমানা বেগমকে তার শশুর বাড়ীতে নজরবন্দি করে রাখা হয়েছে। তবে শিশু নাদিমের মুখে বিষ ঢেলে দেয়ার ঘটনাটি অস্বীকার করেছে সুমানা বেগম। এ ব্যাপরে কানাইঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুল আহাদের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, দেড় মাসের শিশুকে বিষ প্রয়োগ করে হত্যার সংবাদটি তিনি পেয়েছেন। এ ব্যাপারে থানায় অভিযোগ দিলে তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
সূত্র:দৈনিক সিলেট

কমেন্ট
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •