কেলেঙ্কারি, হ্যাকিংয়ের ঘটনায় ছিল বিশ্ব প্রযুক্তিপাড়া

40 total views, 1 views today

নিউজ ডেক্স:: যৌন কেলেঙ্কারি, হ্যাকারদের হামলাসহ দুর্নীতির কারণে ২০১৭ সালে সংবাদের শিরোনাম হয়েছিল বিশ্বপ্রযুক্তি পাড়ার নানা খাতের বিভিন্ন কোম্পানি। এর মধ্যে নাম জড়িয়েছে সার্চ জায়ান্ট গুগল, রাইড শেয়ারিং জায়ান্ট উবার, মোবাইল নির্মাতা প্রতিষ্ঠান স্যামসাংয়ের নামও। বছরের প্রথম থেকে শুরু করে শেষ পর্যন্ত ছিল এসব কোম্পানি নিয়ে ব্যাপক আলোচনা সমালোচনা। এতে কিছু প্রযুক্তি জায়ান্টের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাকেও ছাড়াতে হয়েছে গদি।

স্যামসাংয়ের প্রধান লি জেই-ইয়ংয়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ-
২০১৭ সালের জানুয়ারি মাস থেকেই প্রযুক্তিপাড়ায় সরগরম ছিল সাউথ কোরিয়ান প্রতিষ্ঠান স্যামসাং। আর এর কেন্দ্রবিন্দু ছিলেন স্যামসাংয়ের প্রধান লি জেই-ইয়ং। তার বিরুদ্ধে ছিল ঘুষ, অর্থ আত্মসাৎ ও শপথ ভঙ্গের নানা অভিযোগ। অভিযোগগুলোর মধ্যে অন্যতম অভিযোগ ছিল সরকারি সুযোগ-সুবিধার বিনিময়ে প্রেসিডেন্ট কুন হের বান্ধবী চই সুন-সিলের নিয়ন্ত্রণাধীন বিভিন্ন ফাউন্ডেশন ও প্রতিষ্ঠানকে অনুদান দেওয়া। পরবর্তীতে একই বছরের ২৫ আগস্ট তার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগের রায়ে ৫ বছরের কারাদণ্ড হয় তার।

ভক্সওয়াগনের ডিজেল ইঞ্জিন কেলেঙ্কারি-
ডিজেল ইঞ্জিন কেলেঙ্কারির ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে জার্মানির বৃহত্তম অটোমেকার কোম্পানি ভক্সওয়াগনের এক উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাকে সাত বছরের কারাদণ্ড দেয় যুক্তরাষ্ট্রের একটি আদালত। অলিভার সেচমিডট নামের ওই কর্মকর্তাকে ৮ লাখ মার্কিন ডলার জরিমানাও করা হয়। এদিকে ওই কর্মকর্তার দাবি তিনি, ভক্সওয়াগন দ্বারা অপব্যয়িত হয়েছিলেন। এছাড়া ডিজেল ইঞ্জিন কেলেঙ্কারির ঘটনায় কয়েক বিলিয়ন ডলার জরিমানার মুখে পড়তে হয়েছিল ভক্সওয়াগনকে। এজন্য প্রতিষ্ঠানটি ২ দশমিক ৮ বিলিয়ন ডলার জরিমানা পরিশোধ করতে রাজি হয়েছিল।

উবার কর্মস্থলে ‘যৌন হয়রানি’-
২০১৭ সালের ফেব্রুয়ারিতে উবারের এক সাবেক নারী কর্মকর্তা অভিযোগ তোলেন প্রতিষ্ঠানটির কর্মস্থলে ‘যৌন হয়রানি’র ঘটনা ঘটে। ২০১৬ সালে ডিসেম্বরে উবার ছেড়ে যাওয়া প্রকৌশলী সুসান ফাওলার এই অভিযোগ তোলেন। এক ব্লগ পোস্টে জানিয়েছিলেন, উবারে যোগদানের পর একাধিক ম্যানেজার ও মানবসম্পদ প্রতিনিধিরা কাজের ক্ষেত্রে খুবই দুর্বল আচরণ করে। যখন তিনি প্রতিষ্ঠানে যোগ দেন তখন সেখানকার একজন ম্যানেজার তাকে যৌন হয়রানি করে। এ ঘটনার পর নড়েচড়ে বসে উবার। সেই সময় এ ঘটনা তদন্তেরও সিদ্ধান্ত নেয়া হয় প্রতিষ্ঠানটির পক্ষ থেকে।

গ্রাহকের তথ্য হ্যাকিংয়ের খবর গোপন করার অভিযোগ-
এছাড়া ২০১৭ সালের শেষ দিকে উবারের বিরুদ্ধে ৫ কোটি ৭০ লাখ গ্রাহকের তথ্য হ্যাকিংয়ের খবর গোপন করার অভিযোগ ওঠে। জানা যায়, ২০১৬ সালে ৫ কোটি ৭০ লাখ উবার গ্রাহক এবং চালকের তথ্য চুরি হয়েছে। কিন্তু প্রতিষ্ঠানটি এই হ্যাকিংয়ের খবর গত একবছর যাবত গোপন করে আসছে। এমনকি এই চুরি হওয়া ডাটাগুলো মুছে ফেলতে এবং হ্যাকিং ধামাচাপা দিতে হ্যাকারদের এক লাখ মার্কিন ডলার দিয়েছে উবার।

গুগলে নারী-
পুরুষে বৈষম্যে- ২০১৭ সালের আগস্ট মাসে চাকরি পাওয়ার ক্ষেত্রে নারী-পুরুষে বৈষম্যের অভিযোগ ওঠে গুগলের বিরুদ্ধে। এই অভিযোগ তোলেন গুগলের জ্যেষ্ঠ সফটওয়্যার প্রকৌশলী জেমস ড্যামোরে। সবশেষ এ কারণে তিনি গুগল থেক চাকরিচ্যুত হন।

প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ফেসবুক, 
টুইটার- ২০১৬ সালের যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রাশিয়ার হস্তক্ষেপ ও ভুয়া সংবাদের ছড়াছড়ির অভিযোগ ওঠে ফেসবুক,টুইটার এবং গুগলের বিরুদ্ধে।

সবচেয়ে বড় সাইবার হামলা ওয়ানাক্রাই-
২০১৭ সালের মে মাসে সবচেয়ে বড় সাইবার হামলার ঘটনাটি ঘটে। এই ঘটনাটি ওয়ানাক্রাই র‌্যানসমওয়্যার নামে পরিচিত। কম্পিউটার বা মোবাইল ফোনের মতো যন্ত্রের মধ্যে ম্যালওয়ার ঢুকিয়ে দিয়ে যন্ত্রটির নিয়ন্ত্রণ নিয়ে তা থেকে মুক্তির জন্য অর্থ দাবি করেছিল হ্যাকাররা। জানা যায়, এই হামলার কারণে ১৫০টি দেশের ৩ লাখ কম্পিউটার সিস্টেম ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল।

পেটয়্যা-
জুলাইয়ে পেটয়্যা র‌্যানসমওয়্যার হামলায় বিশ্বের তথ্যপ্রযুক্তি সিস্টেম মারাত্মকভাবে বিপর্যস্ত হয়, কম্পিউটার অচল হয়ে পড়ে এবং বিটকয়েনে মুক্তিপণের অর্থ পরিশোধ করার দাবি করা হয়। হামলার পর ইউক্রেনের পুলিশ ২৪ ঘণ্টায় দেশটির একাধিক কম্পিউটার নেটওয়ার্কে অনধিকার প্রবেশের এক হাজারটির বেশি বার্তা পেয়েছে। এছাড়া মোট ১৫০ কোম্পানি পুলিশের কাছে আক্রান্ত হওয়ার বিষয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে অভিযোগ করেছে। পেটয়্যা হামলায় রাশিয়ার কয়েকটি প্রতিষ্ঠানও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

অ্যাপলের ক্লাউড সিস্টেমে হামলা-
২০১৭ সালের মার্চে অ্যাপলের ক্লাউড সিস্টেম্ব হামলা চালায় ‘তুর্কী ক্রাইম ফ্যামিলি’ নামে একটি হ্যাকার সংগঠন। এসময় তারা দাবি করে তারা আইক্লাউডের বেশ কিছু অ্যাকাউন্টের অ্যাক্সেস নিতে সক্ষম হয়েছে এবং তারা মুক্তিপণ না পেলে ব্যবহারকারীদের এই তথ্য মুছে ফেলবে। এর জন্য হ্যাকারগ্রুপটি ৭৫ হাজার ডলার বিটকয়েন বা ১ লাখ ডলার মূল্যের আইটিউনস গিফট কার্ড মুক্তিপণ দাবি করে। এ জন্য তারা একই বছরের ৭ এপ্রিল পর্যন্ত সময় দিয়েছিল।

ইকুফ্যাক্সের তথ্য চুরি-
২০১৭ সালের সেপ্টেম্বরে ক্রেডিট রেটিং কোম্পানি ইকুফ্যাক্স বড় ধরনের সাইবার হামলার শিকার হয়। এসময় প্রতিষ্ঠানটি জানায় তাদের ১৪৩ মিলিয়ন গ্রাহকের ব্যক্তিগত তথ্য চুরি করেছে হ্যাকাররা। এদের মধ্যে কিছু কানাডিয়ান এবং বৃটিশ নাগরিকদের তথ্যও রয়েছে।

কমেন্ট
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •