চাঁদপুরে ফরিদগঞ্জ উপজেলার গল্লাক-আষ্টা সড়কের দুরবস্থায় দুর্ভোগে অর্ধ লক্ষাধিক মানুষ

নিজস্ব প্রতিনিধি-সবুজ গাজী:: চাঁদপুরে ফরিদগঞ্জ উপজেলার পূর্বাঞ্চলের সাথে উপজেলা সদরের যোগাযোগের সংক্ষিপ্ততম সড়ক এবং পার্শ্ববর্তী হাজীগঞ্জ উপজেলার সাথেও একইভাবে যোগাযোগ রক্ষাকারী সড়ক হচ্ছে গল্লাকবাজার-আষ্টাবাজার সংযোগ সড়ক। দেড় কিলোমিটার দৈর্ঘ্যের সড়কটির দুরবস্থা যেনো কেউ দেখছে না। শুষ্ক মৌসুমে সড়কটি দিয়ে যান চলাচল দুরূহ ।

বর্ষাকালে তো সড়কটি দিয়ে খালি পায়ে হাঁটাও দুষ্কর। ফলে চরম দুর্ভোগে রয়েছে এ অঞ্চলের অর্ধ লক্ষাধিক মানুষ। দেড় কিলোমিটার সড়কের কারণে তাদের ৭/৮ কিলোমিটার সড়ক ঘুরে যেতে হয়।

স্থানীয় লোকজন জানায়, উপজেলার গুপ্টি পূর্ব ইউনিয়নের মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ বাজার আষ্টাবাজার ও সিআইপি বাঁধের বাইরে অবস্থিত গল্লাকবাজার। দুই বাজারের মধ্যে সংযোগ সড়ক ছাড়াও উপজেলা সদরের সাথে যোগাযোগ রক্ষাকারী দেড় কিলোমিটারের এ সড়কটি।

উপজেলা প্রকৌশল অফিস সূত্র মতে, গত ৬/৭ বছর পূর্বে সর্বশেষ সড়কটির সংস্কার করে তারা। এরপরেও স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান নিজ উদ্যোগে সড়কটি ক’বার মেরামত করলেও কয়েক মাসের মধ্যে তা আবার পূর্বের অবস্থায় ফিরে আসে।

স্থানীয়রা জানান, পূর্বাঞ্চলে বেশ কয়েকটি ইটভাটা থাকায় ইতিপূর্বে ব্যাপকহারে যন্ত্রদানব ট্রাক্টর চলাচল করার কারণে সড়কটি বারবার ক্ষতিগ্রস্ত হতো। কিন্তু গত ক’বছর ধরে ট্রাক্টর চলাচল নিষিদ্ধ হওয়ায় সড়কটি ভাল থাকার কথা। বর্তমানে সমস্যা হয়ে দেখা দিয়েছে, সড়কটির দু’পাশে থাকা মাছের ঘের। দু’পাশের ঝিলে ব্যাপক হারে মাছ চাষ হওয়ায় সড়কটি ক্রমশঃ দেবে যাচ্ছে।

ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন খোকন আখন্দ জানান, সড়কটি পূর্বাঞ্চলের মানুষের জন্যে অতীব গুরুত্বপূর্ণ। ক’বার সংস্কার হলেও কার্যত সঠিক কারণ নির্ধারণ না করায় সড়কটি টেকসই হচ্ছে না।

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল গণি বাবুল পাটওয়ারী জানান, সড়কটি রক্ষার দায়িত্ব সকলের। এটি ভালো থাকলে, দ্রুততম সময়ে লোকজনের উপজেলা সদর আবার পার্শ্ববর্তী হাজীগঞ্জ উপজেলার সাথে যোগাযোগ রক্ষা সহজ হবে।

এ ব্যাপারে উপজেলা প্রকৌশলী ড. মোঃ জিয়াউল ইসলাম মজুমদার জানান, দেড় কিলোমিটারের সড়কটি মেরামতের জন্যে বৃহত্তর কুমিল্লা সড়ক বিভাগে প্রকল্প পাঠানো হয়েছে। প্রাক্কলিত ব্যয় ধরা হয়েছে ৪৫ লাখ টাকা। আশা করছি, চলতি অর্থবছরের মধ্যে এটির কাজ সম্পন্ন হবে।

উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আবু সাহেদ সরকার জানান, মাছের ঘেরের পাশ দিয়ে যাওয়া সড়কগুলোর সংরক্ষণের দায়িত্ব মাছ চাষীদেরও রয়েছে। সড়ক রক্ষার প্রয়োজনে ক্ষতিপূরণ আদায়ের একটি প্রস্তাব সম্প্রতি উপজেলা পরিষদে পাস হয়েছে।

কমেন্ট
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •